নয়াদিল্লি: ডেবিট এবং ক্রেডিট কার্ডের সঙ্গে সঙ্গে এবার এটিএম-ও আগামী তিন চার বছরের মধ্যে অপ্রয়োজনীয় হয়ে যাবে, কারণ আর্থিক লেনদেনের ক্ষেত্রে ধীরে ধীরে মোবাইলই একমাত্র ভরসা হয়ে উঠবে৷ আর এক্ষেত্রে জনসাধারণকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন নীতি আয়োগের সিইও অমিতাভ কান্ত৷

নয়ডার অ্যামিটি ইউনিভার্সিটিতে একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে শনিবার তিনি জানান, মোবাইল ট্রানজাকশন এতোটাই বৃদ্ধি পাবে যে আগামী কয়েক বছরের মধ্যে ধীরে ধীরে প্রয়োজন শেষ হয়ে আসবে ডেবিট-ক্রেডিট-এটিএম কার্ডের৷

তিনি আরও জানান, ভারতের ৭২শতাংশ জনগণই ৩২ বছরের কম বয়স এবং তাঁরা অত্যান্ত প্রযুক্তি নির্ভরশীল৷ আমেরিকা-ইউরোপের মতো ভারতও তাই খুব শীঘ্রই আরও অনেকটাই উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাবে৷

কান্ত জানান, বিশ্বে ভারত একমাত্র দেশ যেখানে কোটি সংখ্যক বায়োমেট্রিক ডেটা রয়েছে৷ রয়েছে বহু সংখ্যক মোবাইল ফোন এবং ব্যাংক অ্যাকাউন্ট৷ তাই ভবিষ্যতে অনেক নতুন ধরনের বিষয়ও এখানে দেখা যাবে৷ বেশিরভাগ আর্থিক লেনদেন মোবাইলের মাধ্যমেই হবে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।