নয়াদিল্লি: লোকসভা ভোটের আগেই আত্মপ্রকাশ করতে চলেছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জনকল্যাণ প্রকল্প৷ বয়স্কদের জন্য পেনশন, জীবনবীমা ও মাতৃত্বকালিন সুযোগ সুবিধা নিয়ে বেশ কিছু ‘সামাজিক সুরক্ষা’ পরিকল্পনা নিতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার৷ প্রধানতঃ ৫০ কোটি অসংগঠিত কর্মী ও শ্রমিক-মজদুর এই প্রকল্পের আওতায় আসবে৷ তবে লোকসভা ভোটের আগে, এই পরিকল্পনা কতটা বাস্তবায়িত হবে সেটা নিয়েই উঠেছে প্রশ্ন৷

বছর ঘুরলেই দেশে লোকসভা ভোট৷ ২০১৪ র লোকসভাতে বিজেপি একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসাবে ক্ষমতায় এসেছিল৷ কিন্তু এখন বিভিন্ন রাজ্যে লোকসভা উপনির্বাচনের পর সেই একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছে গেরুয়া শিবির৷ ২০১৯ এ একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা তো দূর, বিজেপির এনডিএ জোটও সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে কিনা সেটাও এখন প্রশ্নের মুখে৷

আর তাই, শ্রমিক ও মজদুর শ্রেণীর প্রায় ৫০ কোটি বয়স্ক মানুষ ও মহিলাদের জন্য মোদী সরকার নিয়ে আসছে বেশ কিছু জনহিতকর পরিকল্পনা৷ আপাততঃ তিনটি পাইলট প্রজেক্ট চালু করা হবে৷ এর মধ্যে থাকছে বয়স্কদের পেনশন, জীবনবীমা ও গর্ভবতী মহিলাদের বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা দেওয়ার পরিকল্পনা৷

এই বছরের ফেব্রয়ারীতেই দেশের প্রায় ১০ কোটি গরীব পরিবারের জন্য চালু করা হয়েছিল স্বাস্থ্য পরিষেবা প্রকল্প ‘মোদীকেয়ার’৷ এবারের প্রজেক্ট তার চেয়েও ৫ গুণ বড়৷ প্রায় ৫০ কোটি মানষের জন্য এই ওয়েলফেয়ার প্রকল্প নিয়ে হাজির মোদী সরকার৷

তবে, পুরো প্রজেক্ট এখনই সর্বত্র চালু করা সম্ভব নয়৷ কিন্তু, লোকসভা ভোটের আগে যুদ্ধকালিন তৎপরতায় এই প্রকল্পের কাজ শুরু করে দিতে চায় মোদী সরকার৷ তবে একবছরের মধ্যে কতটা কি কাজ করা যাবে তা নিয়ে কেন্দ্র সরকার যথেষ্ট সন্দিহান৷ তাই প্রাথমিক পর্বে দেশের ৬ টি মাত্র জেলাতে এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে৷

আগামী বছরে মে মাসের লোকসভা ভোটের দিকে তাকিয়েই এই প্রজেক্ট বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা৷ রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ সতীশ মিশ্র জানিয়েছেন, ‘শ্রমিক শ্রেণীর সামাজিক সুরক্ষা খুব দরকার৷ সেই দিক দিয়ে দেখলে সরকারের এই প্রজেক্ট সাধুবাদ প্রাপ্য৷ কিন্তু মোদীজির এই পরিকল্পনা পুরোপুরি লোকসভা ভোটের দিকে তাকিয়ে, এটাকেই তুরুপের তাস হিসাবে তিনি লোকসভা ভোটের প্রচারে ব্যবহার করতে চান’৷

তবে বর্তমান সরকারের ৩৭৬ বিলিয়ান ডলারের বাজেট থেকে আবার নতুন করে নতুন কোন প্রকল্প খাতে যথেষ্ট পরিমাণ টাকা বরাদ্দ করা সম্ভব কিনা প্রশ্ন উঠেছে তা নিয়েও৷ কেয়ার রেটিংসের চীফ ইকোনমিস্ট মদন সবনাবিশ জানিয়েছেন, ‘এই পরিকল্পনা খাতে খরচা করার মত যথেষ্ট পরিমাণ টাকা এই মূহুর্ত্বে সরকারের হাতে নেই৷ তাই মাত্র ৬ টি জেলায় এই প্রকল্প করে শুধুমাত্র ভোট বাজার মাত করতে চায় নরেন্দ্র মোদীর বিজেপি’৷

বিজেপির তরফ থেকে যেমন এই প্রকল্প নিয়ে প্রচার করা হচ্ছে, তেমনই বিরোধীরা ভোটের চমক বলে কটাক্ষ করছেন নরেন্দ্র মোদীর এই প্রজেক্টকে৷ শুধুমাত্র ভোটের দিকে তাকিয়ে করা, শ্রমিক মজদুরদের সামাজিক সুরক্ষার পরিকল্পনা আদৌ সফল হবে কিনা সেটাই এখন দেখার৷