পটনা: বিহারে বজ্রপাতের ঘটনায় বাড়ল মৃতের সংখ্যা। রাজ্যের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ জানাচ্ছে, বিহারে বজ্রপাতের জেরে মৃত্যু হয়েছে মোট ৯২ জনের। আহত হয়েছেন অনেকে এবং মানুষের সাধারণ সম্পত্তির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

সরকারি একটি বিবৃতি জানাচ্ছে, রাজ্যের ২৪ টি জেলায় বজ্রপাতের ঘটনায় গোপালগঞ্জে সর্বাধিক মৃত্যু হয়েছে। সেখানে মৃতের সংখ্যা ১৩ জন।

মধুবনী ও নাওয়াদায় ৯ জন করে মারা গিয়েছে। ভাগলপুরে ৬ জন ও সিওয়ানে ৬ জন, দ্বারভাঙা, বাংকা, ইস্ট চম্পারণে পাঁচজন করে ও খাগাড়িয়া এবং ঔরঙ্গাবাদে তিন জনের করে মৃত্যু হয়েছে।

এছাড়া ওয়েস্ট চম্পারণ, কৃষ্ণগঞ্জ, জামুই, জাহানবাদ, পূর্ণিয়া, সুপুল, বক্সার, কাইমুর প্রতিটি জেলায় ২ জনের করে মৃত্যু হয়েছে। সমস্তিপুর, শিবহার, সরন, সীতামারী ও মাধেপুরে এক জনের করে মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, খারাপ আবহাওয়ার সতর্কবার্তা ছিল আগে থেকেই। তবে তার চেহারা যে এতটা ভয়ঙ্কর হবে, তা ভাবা যায়নি। একাধিক জেলায় মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার মৃতদের পরিবারকে ৪ লক্ষ টাকা করে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন।

করোনার প্রকোপের মধ্যে স্বাভাবিকভাবেই এই খবর বেশ উদ্বেগজনক। বিহারেও করোনার প্রকোপ রয়েছে। এদিকে আবার বিহারে সামনেই ভোট। ফলে সব মিলিয়ে বেশ প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যে বিহার সরকার।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ