রাজ্য সরকারি কর্মী
রাজ্য সরকারি কর্মী (ফাইল ছবি)

নয়াদিল্লি: সুখবর। কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের ৪ শতাংশ ডিএ বাড়াল সরকার। শুধুমাত্র কর্মরতদের জন্য নয় যারা পেনশন পাচ্ছেন তারাও এর আওতায় আসবেন। শুক্রবার এম্ন ঘোষণা করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভা। দৈনন্দিন জীবনে প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধির এবং মুদ্রাস্ফীতির উপর ডিয়ারনেস অ্যালাওয়েন্স মূলত নির্ভর করে।

এর আগে কেন্দ্রিয় সরকার জানিয়েছিল, কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের ডিএ বাকি আছে যা জানুযারির ১ তারিখ থেকে লাগু হবে। বাকি থাকা ডিএ এই মাসেই দিয়ে দেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে।

নুন্যতম ৪ শতাংশ ডিএ ঘোষণা হওয়ায় আশা করা হচ্ছে এক ধাক্কায় ১৭ শতাংশ থেকে ২১ শতাংশে পৌঁছে যেতে পারে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের মহার্ঘ ভাতা। এর ফলে ১ কোটিরও বেশি কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারী এবং পেনশনভোগীরা উপকৃত হবেন। বছরে দুবার কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের ডিএ বৃদ্ধি করে সরকার। সেই মতো নতুন বছর অর্থাৎ ২০২০ সালের প্রথম ডিএ ঘোষণা করতে চলেছে মোদী সরকার।

উল্লেখ্য, গত বছর দীপাবলির উপহার হিসেবে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের মহার্ঘ ভাতা বাড়ানো হয়েছে। ৫ শতাংশ ডিএ বাড়ানো হয়। এর ফলে ১২ শতাংশ থেকে মহার্ঘ ভাতা বেড়ে হয় ১৭ শতাংশ। মোদীর সরকারের এই ঘোষণার ফলে প্রায় ৫০ লক্ষ কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মী উপকৃত হন।

পাশাপাশি ৬৫ লক্ষ পেনশনভোগী উপকৃত হন। কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্যে এজন্য সরকারের খরচ হয় প্রায় ১৬ হাজার কোটি টাকা। এবার বাজেটে নুন্যতম চার শতাংশ ডিএ ঘোষণা করতে চলেছে মোদী সরকার। যার ফলে ১৭ শতাংশ থেকে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্যে ডিএ’র পরিমাণ বেড়ে দাঁড়াবে ২১ শতাংশ।

দেশের অর্থনৈতিক দুরাবস্থায় ফেব্রুয়ারিতে বাজেট পেশ করেছিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। সাধারণ মানুষের হাজারও প্রত্যাশার মধ্যে বাজেট পেশ করেন তিনি। বাজেটে বিশেষ নজর ছিল সরকারি কর্মচারীদের উপর। মনে করা হয়েছিল, এবারের বাজেটে সরকারি কর্মচারীদের জন্যে বড়সড় ঘোষণা করা হতে পারে। কিন্তু তেমন কিছুই ঘোষণা হয়নি বাজেটে। ফলত ক্ষুব্ধ ছিলেন সরকারি কর্মীদের একাংশ। তবে দ্রুত এই সিদ্ধান্তে অবশ্যই খুশি কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের কর্মরত এবং অবসরপ্রাপ্ত কর্মীরা।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।