নয়াদিল্লি: শুধু সিনেমার মুন্নিই নয়, বাস্তবের গীতাও ফিরছে কাঁটাতার পেরিয়ে। শীঘ্রই ভারতে ফিরছে পাকিস্তানে হারিয়ে যাওয়া গীতা। ১৫ বছর ধরে পাকিস্তানে থাকার পর অবশেষে দেশে ফেরার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। সূত্রের খবর, কেন্দ্রীয় সরকার গীতার পরিবারের সন্ধান পেয়েছে ইতিমধ্যেই।

অনেকেই গীতার পরিবার বলে সরকারে দ্বারস্থ হয়েছিল। সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের বিষয়টি খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছিলেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। বিদেশমন্ত্রী আরও জানিয়েছেন, ভারতীয় হাই কমিশনের কাছে জানিয়েছে যে তারা সাত ভাইবোন। দীর্ঘ ১৫ বছর আগে হারিয়ে যায় মুন্নি। মূক-বধির মুন্নি কাউকে বোঝাতে পারেনি যে সে কোথা থেকে এসেছে। অবশেষে বজরঙ্গি ভাইজান মুক্তো পাওয়ার পর নতুন করে তোড়জোড় শুরু হয় গীতাকে ফিরিয়ে আনার।

এই কয়েক বছর পাক এনজিও এধি ফাউন্ডেশনে রয়েছে গীতা।

এই সংক্রান্ত আরও খবর জানতে ক্লিক করুন:

১.কাঁটাতারের ওপারে ভাইজানের অপেক্ষায় ভারতের ‘মুন্নি’

২.বাস্তবের ‘বজরঙ্গী ভাইজান’-এর সঙ্গে দেখা হল না গীতার

৩.গীতার জন্য রিল থেকে রিয়েলেও ভাইজানি ভূমিকায় সলমন

৪.গীতাকে ঘরে ফেরাতে ভাইজানি ভূমিকায় সুষমা

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।