চিরঞ্জিৎ ঘোষ, বহরমপুর: শ্মশানে অন্তিম কাজ করতে গিয়ে বেঁচে উঠল রোগী৷ ফলে চিকিৎসার গাফিলতির অভিযোগ উঠল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের বিরুদ্ধে। মুর্শিদাবাদের সাগরদিঘির ঘটনা।

অভিযোগ, জীবিত মানুষকে মৃত বলে ঘোষণা করেছিল ওই সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল। তাই শ্মশানে শেষকৃত্যের আগে আবার বেঁচে ওঠেন রোগী৷

আরও পড়ুন: শতাধিক অনুগামী নিয়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতা

যদিও শেষরক্ষা হয়নি৷ রোগীর পরিবারের সদস্যরা তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছিলেন৷ কিন্তু চিকিৎসা চলাকালীন তাঁর মৃত্যু হয়৷

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতের নাম রাধেশ্যাম ভাস্কর (৬২)৷ সাগরদিঘি থানার ব্রাহ্মণী গ্রামের বাসিন্দা রাধেশ্যাম৷ তিনি পায়ে ব্যাথা ও পেটের যন্ত্রণা নিয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সাগরদিঘি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি হন। মৃতের আত্মীয় সন্দীপন হাজরা দাবি করেন, ‘‘একটি ইঞ্জেকশন দিলে মৃত্যু হয় রাধেশ্যাম বাবুর বলে জানান হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তিনঘন্টা পর একটি ডেথ সার্টিফিকেট দেওয়া হয়৷ আমরা মৃতদেহ মনে করে বাড়ি নিয়ে আসি। রাধেশ্যাম বাবুর দুই ছেলে ও এক মেয়ে। এক ছেলে সেনা বাহিনীতে কর্মরত৷ তিনি বুধবার সকালে বাড়ি ফিরে আসেন।’’

আরও পড়ুন: শিক্ষা দফতরে চলল গুলি, নিহত ১০

সন্দীপনবাবুর দাবি, মৃতদেহ নিয়ে রঘুনাথগঞ্জ শ্মশানে বুধবার দুপুরে অন্তিম কাজ করার সময়ে নজরে আসে রাধেশ্যামবাবু জীবিত৷ সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে রঘুনাথগঞ্জে একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ সেখান থেকে জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়৷ সেখানেই বুধবার বিকেলে তিনি মারা যান৷

এই ঘটনায় জেলা জুড়ে হইচই শুরু হয়েছে৷ তবে সংশ্লিষ্ট হাসপাতালের তরফে কারও কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি৷

আরও পড়ুন: মাওবাদীদের সঙ্গে লড়াইয়ে শহিদ বেলডাঙার নির্মল

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV