কেপটাউন: বিরাট কোহলির সহজাত প্রতিভা ক্রিকেটে ওকে রজার ফেডেরারের সমগোত্রীয় করে তুলেছে। অন্যদিকে অজি তারকা ব্যাটসম্যান স্টিভ স্মিথের মানসিক দৃঢ়তা ওকে ক্রিকেটের রাফায়েল নাদাল হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছে। প্রাক্তন জিম্বাবোয়ে পেসার পমি এমবাঙ্গোয়ার সঙ্গে অনলাইন চ্যাট সেশনে সমসাময়িক ব্যাটিং গ্রেটদের এভাবেই বর্ণনা করলেন এবি ডি’ভিলিয়ার্স।

ডি’ভিলিয়ার্সের কথায়, বিরাট এবং স্মিথের মধ্যে তুলনা করাটা খুবই কঠিন। তবে এটা অস্বীকার করার জায়গা নেই যে স্ট্রাইকার হিসেবে কোহলির সহজাত ক্ষমতা অনেক বেশি। তাই মিস্টার ৩৬০’র কথায়, ‘টেনিসের সঙ্গে ক্রিকেটের তুলনা করলে কোহলি অনেকটা ফেডেরারের মতো। অন্যদিকে স্মিথ রাফায়েল নাদালের মতো। স্মিথ মানসিক দিক থেকে ভীষণ শক্তিশালী। পাশাপাশি রান করে একটি নির্দিষ্ট ছকে। ওর ব্যাটিং স্টাইল খুব একটা সহজ মনে না হলেও ক্রিজে রেকর্ড তৈরি করতে সিদ্ধহস্ত ও।’

ডি’ভিলিয়ার্সের আরও সংযোজন, ‘আমার মনে হয় ব্যাটসম্যান হিসেবে মানসিক ভাবে সবচেয়ে শক্তিশালী স্মিথ। তবে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে সমান গতিতে রান করতে ও চাপের মুখে ম্যাচ জেতাতে বিরাটের জুড়ি মেলা ভার।’ এখানেই শেষ নয়, রান তাড়া করে ম্যাচ জেতানোর ক্ষেত্রে কিংবদন্তি সচিন তেন্ডুলকরের চেয়ে সামান্য হলেও বিরাটকে এগিয়ে রেখেছেন এবি। তাঁর কথায়, ‘সচিন তেন্ডুলকর বিরাট এবং আমার দু’জনেরই রোল মডেল। কেরিয়ারে তিনি যা কিছু সসম্মানের সঙ্গে অর্জন করেছেন তা উদাহরণ হয়ে রয়েছে বাকিদের জন্য।’

ডি’ভিলিয়ার্স বলছেন, একইভাবে বিরাটও একটা মান তৈরি করে দেবেন যা আগামী প্রজন্ম অনুসরণ করবে। কিন্তু রান তাড়া করার ক্ষেত্রে তিনি জীবনে বিরাটের চেয়ে ভালো ব্যাটসম্যান দেখেননি বলে জানাচ্ছেন প্রাক্তন প্রোটিয়া অধিনায়ক। তাই এবি’র কথায়, ‘সচিন সমস্ত ফর্ম্যাট এবং সমস্ত পরিস্থিতিতে সেরা। কিন্তু রান তাড়া করার ক্ষেত্রে বিরাট সবার উপরে।’

একইসঙ্গে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি এবং তাঁর অভিনেত্রী স্ত্রী অনুষ্কা শর্মার সঙ্গে দারুণ বন্ধুত্বের কথাও স্বীকার করেছেন এবি। কোহলির ফ্র্যাঞ্চাইজি সতীর্থর কথায়, ক্রিকেট ছাড়াও আমাদের পরিবার-সন্তানদের নিয়ে কথাবার্তা হয়। ছোট কোহলিকে দেখতে তিনি মুখিয়ে আছেন বলেও জানান মিস্টার ৩৬০।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প