নয়াদিল্লি: দুগ্ধজাত পণ্যের বাজার ধরতে মাঠে নামল পতঞ্জলি৷ আমুল, মাদার ডেয়ারি ও মেট্রো ডেয়ারির দুধের পাউচের পাশে এবার বিক্রি হবে পতঞ্জলির দুধ৷ ক্রেতাদের স্বস্তি দিতে অন্যান্য ডেয়ারি কোম্পানির তুলনায় অনেক সস্তায় দুধ দিতে চলেছে বাবা রামদেবের সংস্থা৷

সস্তায় ভালো পণ্য৷ এটাই হল পতঞ্জলির ইউএসপি৷ দুধের ক্ষেত্রেও সেই ফর্মুলার পথেই হাঁটলেন বাবা রামদেব৷ তাই অন্যান্য কোম্পানি যেখানে এক লিটার দুধের জন্য ৪৪ টাকা নিচ্ছে সেখানে পতঞ্জলি সমপরিমাণ দুধ দেবে ৪০ টাকায়৷ বাবা রামদেবের কথায়, দুধের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে৷ তাই পতঞ্জলিও দুধ বিক্রি করবে৷ এক লিটার দুধ পাওয়া যাবে ৪০ টাকায়৷ যা অন্যান্য কোম্পানির দুধের দামের থেকে চার টাকা কম৷

প্রাথমিকভাবে প্রতিদিন ৪ লক্ষ লিটার দুধ বাজারে বিক্রির টার্গেট নিয়েছে পতঞ্জলি৷ পরে দুধ বিক্রির পরিমাণ বাড়ানো হবে৷ বাবা রামদেব জানিয়েছেন, পতঞ্জলি দুগ্ধচাষীদের কাছ থেকে সরাসরি দুধ কিনবে৷ দুধের দাম সরাসরি ১৫ হাজার দুগ্ধচাষীদের অ্যাকাউন্টে দিয়ে দেওয়া হবে৷ দুধ ছাড়াও দুগ্ধজাত নানা পণ্য মাখন, দই ইত্যাদিও বাজারে এনেছে পতঞ্জলি৷

কিছুদিন আগে আমুল লিটার পিছু দুধের দাম দু’টাকা বাড়ায়৷ গুজরাট কো-অপারেটিভ মিলংক মার্কেটিং ফেডারেশন অর্থাৎ যারা আমুল দুধ বাজারজাত করে তাদের পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয় তাদের ছয়টি ব্যান্ডেরই প্রতি লিটারে দাম বাড়ছে দু’টাকা করে৷ সেই দেখাদেখি মাদার ডেয়ারি ঘোষণা করে প্রতি লিটার দুধে তারা এক টাকা দাম বাড়াতে চলেছে৷ আর ৫০০ মিলিলিটার দুধের দাম বেড়ে হয়েছে দু’টাকা৷ দাম বাড়ার ক্ষেত্রে সংস্থার যুক্তি, দুগ্ধ চাষিদের কাছ থেকে দুধ কেনার খরচ অনেক বেড়ে গিয়েছে৷ তাই এই দাম বৃদ্ধি৷ তবে পলি প্যাকের ক্ষেত্রে এই দাম বেড়েছে৷ টোকেন মিল্কের দাম একই থাকছে৷