জম্মু: সন্ত্রাস আতঙ্ক পিছু ছাড়ছে না জম্মু কাশ্মীরের৷ গতকালের গ্রেনেড হামলার পর এবার ব্যাগ আতঙ্ক ছড়াল জম্মু বিমানবন্দরে৷ বৃহস্পতিবারই একটি বাসের মধ্যে রহস্যজনক বিস্ফোরণ হয়। সূত্রের খবর, বাসের মধ্যেই গ্রেনেড বিস্ফোরণ হয়৷
এই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই ফের জম্মু বিমানবন্দরে রহস্যজনক ব্যাগ ঘিরে আতঙ্ক ছড়াল৷ শুক্রবার জম্মু বিমানবন্দর চত্ত্বরে এই ব্যাগটি উদ্ধার করা হয়৷ ব্যাগটি কে বা কারা রেখে গিয়েছে তা জানা যায়নি৷ সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে আসে বম স্কোয়াড৷

ব্যাগটিকে চারিদিক থেকে ঘিরে ফেলেন বিমানবন্দরের নিরাপত্তা কর্মীরা৷ ব্যাগটি থেকে পাওয়ার সার্কিট মিলেছে, যা যে কোনও ধরণের আইইডি বিস্ফোরণের কাজে ব্যবহার করা হয়৷ জম্মু কাশ্মীর পুলিশের একটি স্পেশাল টিম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়৷ তবে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, বোমার আকারে কোনও সন্দেহজনক বস্তু ব্যাগটি থেকে পাওয়া গিয়েছে৷ যদিও এই ঘটনায় বিমান চলাচলে কোনও ব্যাঘাত ঘটেনি বলেই শেষ পাওয়া খবরে জানা গিয়েছে৷

আরও পড়ুন : সীমান্তে শত্রু নিকেশে এবার বড়সড় সিদ্ধান্ত নিল ভারতীয় সেনা

কড়া নিরাপত্তা জারি করা হয়েছে গোটা বিমানবন্দর জুড়ে৷ তল্লাশি চালানো হচ্ছে৷ যাত্রী সুরক্ষার সাথে কোনও আপোষ করা হবে না বলে জানানো হয়েছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে৷

এদিকে, গতকালের বিস্ফোরণের ঘটনায় অন্তত আটজন আহত হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে খবর পাওয়া আসে। এরপর ক্রমশ বাড়তে থাকে আহতদের সংখ্যা। চিকিৎসকরা জানান, কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক৷ ঘটনার পরেই ঘটনাস্থল ঘিরে ফেলে নিরাপত্তা বাহিনী। বিস্ফোরণের ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য তৈরি হয় কাশ্মীর জুড়ে।

আরও পড়ুন : সন্ত্রাসবাদীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিতে পাকিস্তানকে চাপ আমেরিকার

এরপরেই ব্যাপক ধরপাকড় শুরু হয়। এরপরেই এই ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করা হয়। যার নাম ইয়াসির ভাট৷ জম্মু আইজিপি মণীশ কে সিনহা জানান, ইয়াসিরকে এই গ্রেনেড ছোঁড়ার নির্দেশ দিয়েছিল হিজবুল মুজাহিদিনের ফারুক আহমেদ ভাট ওরফে ওমর৷ কুলগাম থেকে বৃহস্পতিবারই সে জম্মুতে আসে এই কাজ করার জন্য৷ সিসিটিভি ফুটেজ দেখার পরই ইয়াসিরকে চিহ্নিত করা হয় বলে জানা গিয়েছে৷