চেন্নাই: ২০২১ আইপিএলে এখনও পর্যন্ত একটি ম্যাচ জেতেনি সানরাইজার্স হায়দরাবাদ৷ তবে দলে দেখা গেল সম্প্রীতির ছবি৷ পবিত্র রমজানে উপবাস রেখেছে সানরাইজার্সের রশিদ খানকে৷ তারকার স্পিনারের সঙ্গে উপবাস রাখলেন দলের ক্যাপ্টেন ডেভিড ওয়ার্নার এবং তারকা ব্যাটসম্যান কেন উইলিয়ামসন।

রোজার পর নিয়ম মেনে ইফতার করতেও দেখা গেল সানরাইজার্স হায়দরাবাদের ক্রিকেটারদের। টিম হোটেল উপবাস ভেঙে দিনের শেষ খাবার টেবলে রশিদ খান, মহম্মদ নবি, মুজিব-উর রহমান ও খলিল আহমেদের একই সঙ্গে দেখা যাওয়াটা স্বাভাবিক৷ কিন্তু উপবাস ভেঙে একই সঙ্গে এঁদের সঙ্গে খাবার খেলে সানরাইজার্স ক্যাপ্টেন ওয়ার্নার ও উইলিয়ামস৷

এই ভিডিও ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করেছেন রশিদ৷ নিজের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে যে ভিডিওতে রয়েছেন ডেভিড ওয়ার্নার, কেন উইলিয়ামসন। যার ক্যাপশনে রশিদ লিখেছেন, “Two legends were fasting with us today.” অর্থাৎ দুই কিংবদন্তি আজ আমাদের সঙ্গেই উপবাস করেছিলেন। ভিডিওটি-তে দেখা গিয়েছে রশিদ দুই দলীয় সতীর্থকে জিজ্ঞাসা করতে শোনা গিয়েছে৷ ক্যাপ্টেনকে রশিদ জিজ্ঞেস করেন, “David, how is your fasting today?”

উপবাস করার অভিজ্ঞতা কেমন, তা জানিয়ে সানরাইজার্স ক্যাপ্টেন ওয়ার্নার বলেন, “Good, but I am very thirsty and very hungry today. My mouth is so dry.” এবার রশিদ ক্যামেরা ঘোরান উইলিয়ামসনের দিকে এবং একই প্রশ্ন করেন৷ চোটের কারণে ২০২১ আইপিএলে এখনও কোনও ম্যাচ না-খেলা উইলিয়ামসন বলেন, “Very good, thanks.”

আগের ম্যাচে মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ১৫০ রান তাড়া করেও জিততে পারেনি হায়দরাবাদ৷ প্রথমে বোলিং করে মুম্বইকে দেড়শোর মধ্যে আটকে রেখেছিল সানরাইজার্স। কিন্তু রান তাড়া করতে নেমে নিয়মিত ব্যবধানে উইকেট হারিয়ে ম্যাচ হারে হায়দরাবাদ৷ আইপিএলে প্রথমবার টানা তিন ম্যাচ হেরে শুরু করলে সানরাইজার্স৷ টানা তিন ম্যাচ হার প্রসঙ্গে সানরাইজার্স অধিনায়ক বলেন, ‘জানি না, এই হারকে কীভাবে ব্যাখ্যা করব। আমরা দু’জনে ক্রিজে সেট হয়ে গিয়েছিলাম। আমি রান-আউট হলাম৷ আর জনি হিট-উইকেট হলো৷ আর মিডল-অর্ডারে ভুল শট নির্বাচন৷’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.