লন্ডন: আগেও একবার ট্র্যাফিক সংক্রান্ত অভিযোগ উঠেছিল তাঁর বিরুদ্ধে৷ এই নিয়ে দ্বিতীয়বার ব্রিটিশ ট্র্যাফিক আইনে দোষী সাব্যস্ত হতে শাস্তির মুখে তারকা ফুটবলার ডেভিড বেকহ্যাম৷ গাড়ি চালানোর সময় মোবাইল ফোন ব্যবহারের জন্য বেকহ্যামের গাড়ি চালানোর উপর ছ’মাসের নিষেধাজ্ঞা জারি হলো৷ অর্থাৎ আগামী ছ’মাস নিজে গাড়ি চালাতে পারবেন না ইংল্যান্ডের এই প্রাক্তন ফুটবলার৷

আরও পড়ুন: চ্যাম্পিয়ন্স লিগের পর ইউরোপা লিগেও অল-ইংল্যান্ড ফাইনাল

গত বছর ২১ নভেম্বর ধীর গতিতে গাড়ি চালানোর সময় মোবাইল ফোনে কথা বলছিলেন বেকহ্যাম৷ লন্ডনের রাস্তায় বেকহ্যামের এমন ছবি ক্যামেরাবন্দি করেন একজন পথচারি৷ তার ভিত্তিতেই ব্রমলি ম্যাজিস্ট্রেটস কোর্ট শাস্তি ঘোষণা করে প্রাক্তন ম্যান ইউ তথা রিয়াল মাদ্রিদ তারকার৷ বেকহ্যাম নিজে হাজির ছিলেন সুনানিতে৷

বিচারপতি ক্যাথরিন মুর বলেন, এর আগে গতিসীমা ভেঙে গাড়ি চালানোর জন্য বেকহ্যামের লাইনেন্সে পেনাল্টির ৬ পয়েন্ট যোগ হয়েছিল৷ এবার আরও ৬ পয়েন্ট যোগ হওয়ায় তা ১২ পয়েন্টে এসে দাঁড়ায়, যা বেকহ্যামের লাইসেন্স বাতিল করার পক্ষে যথেষ্ট৷ সেকারণেই আগামী ৬ মাস নিজে গাড়ি চালাতে পারবেন না তিনি৷’

আরও পড়ুন: লা গ্যালাক্সিতে মূর্তি উন্মোচনে আবেগঘন বেকহ্যাম

বেকহ্যাম নিজে অবশ্য ঘটনাটি মনে করতে পারছেন না বলে সাফাই দেন, যা যুক্তিযুক্ত হলেও অভিযোগ এড়ানোর পক্ষে যথ্ষ্ট ছিল না৷ এর আগে ৪০ মাইল প্রতি ঘণ্টার গতিসীমার রাস্তায় ৫৯ মাইলে গাড়ি চালিয়ে অভিযুক্ত হয়েছিলেন বেকহ্যাম৷ সেবার নির্ধারিত ১৪ দিন পেরিয়ে যাওয়ার পর তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয় বলে জরিমানা দিতে অস্বীকার করেন তিনি৷ এবার অবশ্য শুধু গাড়ি চালানোয় নিষেধাজ্ঞাই নয়, সুনানির খরচ সমেত মোট ৯২৫ পাউন্ড জরিমানাও ধার্য করা হয়েছে তারকা ফুটবলারের কাছ থেকে৷

সপ্তম পর্বের দশভূজা লুভা নাহিদ চৌধুরী।