নয়াদিল্লি: ঐতিহাসিক রায় সুপ্রিম কোর্টের। হিন্দু-আনডিভাইডেড ফ্যামিলি (HUF) প্রপার্টিতে মেয়েদের পক্ষে রায় দিয়েছে দেশের শীর্ষ আদালত। বাবার সম্পত্তিতে অধিকার আছে মেয়েদের, এমনই জানিয়েছে দেশের শীর্ষ আদালত।

বিচারপতি অরুণ মিশ্রের তত্ত্বাবধানে তিন-বিচারপতির বেঞ্চ এদিন জানিয়েছে, সংশোধিত হিন্দু-সাকশেশন-অ্যাক্ট (Hindu Succession Act) ২০০৫ অনুযায়ী, বাবা-মা’য়ের সম্পত্তিতে সমান অধিকার আছে মেয়েদের, এমন ঘোষণা করেছে সুপ্রিম কোর্ট।

স্পষ্ট জানানো হয়েছে, হিন্দু-সাকশেশন-অ্যাক্ট সংশোধন হওয়ার পরে মেয়েদের এই আইনি অধিকার নিশ্চিত। তবে সংশোধনের সময় বাবা বেঁচে থাকলে বা থাকলেও সকল মেয়েরাই এই সুবিধা পাওয়ার অধিকার আছে।

আইনের বাখ্যা ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ যেহেতু সংশোধিত আইন সুপ্রিম কোর্টের তরফে নেওয়া বিগত কিছু সিদ্ধান্তকে খারিজ করেছে। ২০০৫ সালের সেপ্টেম্বর ৯ তারিখের মধ্যে বাবা-মেয়ে উভয়েই জীবিত থাকলে তবেই এই সুবিধা নেওয়া সম্ভব হবে।

তিন-বিচারকের বেঞ্চ বারবার আইন সংশোধনের লক্ষ্য কি সে বিষয়ে আলোকপাত করেছেন। হিন্দু-আনডিভাইডেড ফ্যামিলিতে মেয়েদের সমান অধিকার দেওয়া হবে। একটি ছেলের সমান হবে। অবিভক্ত হিন্দু পরিবারে সম্পত্তির অধিকারে মেয়েদের পক্ষেই রায় দিয়েছে আদালত। এদিন শীর্ষ আদালত ঐতিহাসিক এক রায়ে জানিয়ে দিয়েছে, ২০০৫ সালের হিন্দু উত্তারাধিকার আইন সম্পর্কে দেশের অবস্থান স্পষ্ট করেছে।

এদিন রায় দানের সময় সুপ্রিম কোর্ট জানায়, ‘কন্যা সন্তান চিরকালই .. প্রিয় কন্যা সন্তান হয়েই থাকেন। ‘ এদিন সাফ ভাষায় আদালত জানিয়ে দেয় , মহিলার জন্ম যবেই হয়ে থাক ২০০৫ সালের সংশোধিত এই আই অনুযায়ী সমস্ত মহিলার বাবার সম্পত্তি হিন্দু আইন অনুযায়ী অধিকার সমান।

সুপ্রিম কোর্ট এদিন সোজাসুজি জানায়, যেহেতু শীর্ষ আদালত এই সংক্রান্ত বিভ্রান্তি কাটিয়ে দিয়েছে আজকের রায়ে, তাই সারা দেশে কন্যা সন্তানের আইনি উত্তরাধিকার সংক্রান্ত যে সমস্ত মামলা রয়েছে, তা যেন সত্ত্বর নিষ্পত্তি করা হয়।

হিন্দু আইন অনুযায়ী, বাবার সম্পত্তিতে মেয়েদের সমান অধিকার থাকবে। যেভাবে ছেলেদের অধিকার রয়েছে সম্পত্তিতে সেভাবেই মেয়েদেরও অধিকার থাকবে বলে জানানো হয়েছে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও