কলকাতা: আড়াই বছর পর ভোটের দিন ঘোষণা করল প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়৷ আগামী ১৪ নভেম্বর হবে ছাত্র সংসদের ভোট৷ ওই দিনই ভোট গণনা হলেও পরের দিন ছাত্র সংসদ তৈরি হবে৷

বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম অনুযায়ী, বিজ্ঞপ্তি দিয়ে ভোটের দিন ঘোষণা করল প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়৷ ছাত্র সংসদের ৫টি পদের জন্য নেওয়া হবে ছাত্র ভোট৷ মনোনয়ন পত্র দাখিল করতে হবে অনলাইনে৷ তবে ভোটের প্রার্থী হতে হলে বিশ্ববিদ্যালয়ে উপস্থিতির হার থাকতে হবে কমপক্ষে ৭৫ শতাংশ৷

এছাড়াও জানান হয়েছে,সরকারের কাউন্সিল বিধি নয়, পুরনো নিয়মেই হবে ছাত্র ভোট। প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের যে ৫টি পদের জন্য ভোট হবে,তা হল সভাপতি, সহ সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক,সহ সম্পাদক ও ইউনিয়নের কোষাধ্যক্ষ পদে৷

দীর্ঘ আড়াই বছর পর কিছুদিন আগে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে ছাত্রভোটের সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা দফতর। চারটি বিশ্ববিদ্যালয়ে এই ভোটের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য। এই চারটি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে রয়েছে যাদবপুর, রবীন্দ্রভারতী, প্রেসিডেন্সি ও ডায়মন্ড হারবার বিশ্ববিদ্যালয়।এর মধ্যে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভোটের দামাম বেজে গেল৷

শিক্ষা দফতরেরর তরফে জানানো হয়েছে, যে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে কোনও কলেজ নেই তাদের মধ্যে এই চারটি বিশ্ববিদ্যালয়েই হতে চলেছে এই ছাত্রভোট। তবে কবে নাগাদ এই ভোট হবে সে বিষয়ে এখনও কিছু জানা যায়নি। সূত্র জানাচ্ছে, আপাতত এই চারটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রভোটের সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও বাকি বিশ্ববিদ্যালয় যেমন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়, স্টেট ইউনিভার্সিটি, উত্তরবঙ্গের মতো বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে ভবিষ্যতে ছাত্রভোট করার কথা মাথায় রেখেছে শিক্ষামন্ত্রক।

উল্লেখ্য, রাজ্যে বহুদিন ধরেই বারবার ছাত্রভোটের দাবি উঠে এসেছে। যাদবপুর-প্রেসিডেন্সির মত বিশ্ববিদ্যালয়ে তো বটেই, পাশাপাশি বেশ কিছু কলেজেও ছাত্রভোটের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেছিল বাম ও গেরুয়া শিবির। লোকসভা ভোটে তৃণমূলের প্রতাপ কিছুটা খর্ব হওয়ার পরেই এই আন্দোলনের ধার আরও বেড়েছিল। এবার সেই সব ইস্যুকে মাথায় রেখেই ছাত্রভোট আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিতে চলল শিক্ষা দফতর।