কলকাতা: তিথি মেনে কৈলাসে পাড়ি দিয়েছেন দেবী দুর্গা৷ উমাকে বিদায় জানিয়ে সিঁদুর খেলায় মেতেছে গোটা রাজ্য৷ দেবীর বিদায়ের বিষাদ নিয়েও মণ্ডপে মণ্ডপে জমছে ভিড়৷ উৎসবের শেষ বেলায় উৎসবে গা মেলাতে প্রস্তুত শহর তিলত্তমা৷

দশমীর দিন দুপুর থেকে প্যান্ডেলমুখী জনতা৷ শেষ মুহূর্তের চুটিয়ে আনন্দ করে নিতে চাইছে আপামর বাঙালী৷ কারণ এরপরেই তো রোজকারের সেই একঘেঁয়ে জীবনে ফিরে যেতে হবে৷ তাই ঝড় ঝাপটা বৃষ্টি- সব বাধা উপেক্ষা করে রাস্তায় নেমে পড়েছে বাঙালী৷ দশমীর সেই চেনা ছবি ফিরে এসেছে মহানগরে৷ মণ্ডপে মণ্ডপে উপচে পড়া ভিড়৷ যেদিকে তাকানো যায় রাশি রাশি কালো মাথা ছাড়া কিছুই চোখে পড়ে না৷ উত্তর থেকে দক্ষিণ পূর্ব থেকে পশ্চিম সর্বত্র এক ছবি৷ মোদ্দা কথা আজ দশমী হলেও নবমীর ছোঁয়া৷ কোনমতেই ঘরে থাকা চলবে না৷

অন্যদিকে দক্ষিণের আরেক আলোচিত পুজো নাকতলা উদয়ন সংঘে কাতারে কাতারে মানুষ ভিড় জমাচ্ছেন৷ কলকাতার বুকে প্রথম থ্রি এফেক্টের কারুকার্যে সেজে উঠেছে মণ্ডপ৷ প্রতিমাতেও থ্রি এফেক্টের ছাপ স্পষ্ট৷ ‘চোখের পাতা ফেলছে’ নাকতলার দুর্গা এবার অন্যতম ক্রাউড পুলার৷

ঠাকুর দেখা ছাড়াও আরও কত কি প্ল্যান বাঙালীর৷ কারোর প্ল্যান সারারাতের। কেউ আবার শুধুই হালকা মেজাজের আড্ডায় বিশ্বাসী। কেউ লাইন দিচ্ছেন কেএফসি-পিৎজা হাটে। কারও আবার বিরিয়ানি-তন্দুরী না হলে চলছে না। আর ছোটদের জন্য ভেঁপু, বেলুন এসব তো আছেই। আর আছে বৃষ্টি৷