বালুরঘাট : মেলা মানেই বহু মানুষের মিলনক্ষেত্র। এক সময় দুই বাংলার মানুষের মিলন ক্ষেত্র হয়ে ছিল আত্রেয়ী ঘাটের দশমীর মেলা। আজ সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সেই জৌলুস হারিয়েছে মেলাটি। সময় বলতে প্রশাসনিক বিধির জালেই বাঁধা পড়েছে দশমীর মেলা।

সীমান্ত পেরিয়ে অনুপ্রবেশের কবলে পড়ে রং হারিয়েছে দশমীর মেলা। বছর আত্রেয়ী ঘাটের এই মেলা দেখতে ভিড় জমাতেন দিনাজপুর মানুষ। এছাড়া বজরা নিয়ে সীমান্ত পেড়িয়েও মানুষ আসতেন দশমীর মেলা দেখতে। কল্যানি সিনেমা হল লাগোয়া আত্রেয়ী ঘাটের দশমীর মেলার মূল আকর্ষণ ছিল প্রতিমাসহ নৌকাবিহার। তবে আজকাল দুষ্কৃতীরা তাকিয়েই থাকে এমন সুযোগের জন্য। খোলা মাঠ পেলেই ঘটতে পারে বাংলাদেশ সীমান্ত পেড়িয়ে অনুপ্রবেশ ও পাচারকর্ম। তাই ওপার বাংলা থেকে এপারে মানুষের আসা বন্ধ হয়ে গেছে। পাশাপাশি প্রশাসনিক নিয়মের বেড়া  জালে  নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে নৌকায় প্রতিমা নিরঞ্জনে। ফলে মূল আকর্ষণ না  থাকায় স্বভাবিকভাবেই হারিয়েছে মেলার জৌলুস।

তবে প্রতিমা নিরঞ্জনে বাধা নেই। তাই মেলার সঙ্গে হয়েছে বিসর্জন। বিসর্জন দেখতে ঘাটে ভিড় জমান বালুরঘাট ও এলাকার মানুষ। তবে যথাযথ নিরাপত্তার অভাবে চরম দুরাবস্থার সৃষ্টি হয়। ভিড়ে চাপা পরে জখম হয় বহু মানুষ। তবে ঘাটে থাকা পুরসভার স্বাস্থ্য শিবিরের দৌলতে আহতদের চিকিৎসা করা হয় তাদের। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে সেখানে হাজির হয় জেলা পুলিশ।

 

সপ্তম পর্বের দশভূজা লুভা নাহিদ চৌধুরী।