লখনউ : অনুমতি ছাড়া মুসলিম পুলিশ কর্মী দাড়ি রাখতে পারবেন না। এই নিয়মের জেরে এক মুসলিম পুলিশ কর্মীকে সাসপেন্ড করলেন উত্তরপ্রদেশের বাগপত জেলার পুলিশ সুপার অভিষেক সিং।

মুসলিম সাব ইনস্পেক্টর ইনতেসার আলি দাড়ি রেখে ভুল করেছেন, এমনই দাবি ওই পুলিশ সুপারের। এই অপরাধের জেরে সাসপেন্ড হতে হয়েছে তাঁকে। ইনতেসারকে বলা হয়েছে দাড়ি রাখার জন্য উর্ধতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিতে হবে তাঁকে।

এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করেছে ইত্তেহহাদ উলেমা ই হিন্দের প্রেসিডেন্ট মৌলানা কোয়ারি মুস্তাফা দেহেলভি। পুলিশ সুপারের এই ধরণের কাজ পক্ষপাতিত্ব মূলক বলে সমালোচনা করেছেন তিনি। ওই পুলিশ সুপারের বিরুদ্ধে কড়া ব্যাবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তিনি। পুলিশের কাজের মধ্যে ধর্মভিত্তিক বৈষম্য কেন থাকবে, প্রশ্ন তুলেছেন অন্যান্য মুসলিম ধর্মগুরুরা।

উল্লেখ্য, বাগপতে কর্মরত এই সাব ইন্সপেক্টরকে পুলিশ সুপার নির্দেশ দেন দাড়ি কেটে ফেলার জন্য। তবে তাতে রাজি হননি তিনি। যদি দাড়ি রাখতে হয়, তবে তাঁকে অনুমতি নিতে হবে বলে জানিয়ে ছিলেন ওই পুলিশ সুপার। শিখরা ছাড়া আর কেউ দাড়ি রাখতে পারেন না পুলিশ কর্মী হিসেবে কাজ করলে। তাই অনুমতি নিতে হবে বলে জানানো হয় ওই মুসলিম সাব ইন্সপেক্টরকে।

তবে সেই নির্দেশ অমান্য করেই দাড়ি রাখছিলেন ইনতেসার আলি বলে অভিযোগ। এজন্য কোনও অনুমতিও নেননি তিনি। একাধিকবার নিয়ম ভঙ্গ করার অপরাধে তাঁকে সাসপেন্ড করা হয়।

বাগপতের সাব ইন্সপেক্টর হিসেবে ইনতেসার আলিকে এই নিয়ে একাধিকবার সতর্ক করা হয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। তবেই তাতে তিনি কর্ণপাত করেননি বলেই খবর। তিন বছর আগে সাব ইন্সপেক্টর পদে ইনতেসর পুলিশ ফোর্সে যোগ দেন। তবে ইনতেসর জানিয়েছেন অনুমতি চেয়ে কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিয়েছেন তিনি। কিন্তু কোনও উত্তর পাননি।

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।