দুবাই: উড়ে যাওয়ার মুহূর্তেই নজির। বিশ্বের অন্যতম উঁচু ভবনের ছাদ থেকে ডানা মেলার মুহূর্তটা নজির হয়েই থেকে গিয়েছে। বিরাটকায় ঈগলের গায়ে থাকা ক্যামেরায় ধরা পড়ছে নিচের দুবাই শহর। দার্শানের ডানায় ভর করে এসেছে এই রেকর্ড।

৫২ লক্ষের বেশি মানুষ দেখেছেন বুর্জ খলিফা টাওয়ার থেকে ঈগলের এই উড়ান। উড়ে গিয়ে ঈগল পৌঁছে গেল দূরে দাঁড়ানো প্রশিক্ষকের কাছে৷ ব্যাস, হয়ে গেল বিশ্বরেকর্ড৷ দার্শান উড়তে শুরু করতেই ২,৭০০ ফুট উপর থেকে দুবাইকে দেখ পেয়েছেন দর্শকরা।

আরও পড়ুন : বন্ধ হতে চলেছে এসবিআই ডেবিট কার্ড, নয়া সমস্যায় গ্রাহকরা

পাখি সংরক্ষণের জন্য এই উদ্যোগ। ঈগল তো ১০ হাজার ফুট উপরে উড়তে পারে। আর শকুন উড়তে পারে ৩৭ হাজার ফুট উপরে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ঈগল আর শকুন দুটি প্রজাতিই বিলুপ্তির পথে। পথে৷ তাদের সহ বাকি পাখিদের রক্ষা করা জরুরি।

বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ভবনের তালিকায় রয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর অন্যতম শহর দুবাইয়ের বুর্জ খালিফা টাওয়ার৷ নজির গড়া উড়ানের আগে বুর্জের একেবারে মাথায় বসিয়ে দেয়া হয় দার্শান কে। তার ঘাড়ে বাঁধা ছিল লাইভ স্ট্রিমের অত্যাধুনিক ক্যামেরা৷

দার্শান নামের ঈগলকে ট্রেনিং দিয়েছে ফ্রান্সের এক প্রশিক্ষক। বলা হয়েছে, বিশ্বরেকর্ড গড়ার অভিযানে ঈগলের সঙ্গে সেই লাইভ ক্যামেরায় ২৭০০ ফুট উপর থেকে দুবাই শহর দেখেছেন বিশ্ববাসী। ভাইরাল হয়েছে সেই ছবি। লক্ষ লক্ষ মানুষ সেই ছবি দেখে চমকে গিয়েছেন।

আরও পড়ুন : ভারতের অভিযোগের জের, ২০০টি পাকিস্তানি ট্যুইটার অ্যাকাউন্ট সাসপেণ্ড

দার্শান কামাল করে দিয়েছে। তার ডানায় ভর করে এসেছে অমূল্য ছবির কম্পোজিশন। এভাবে কেউ পারবে না। বলছেন বিশেষজ্ঞরা। প্রশ্ন উঠছে, বুর্জ খলিফার মাথায় কখনও কি আগে পাখি বসেছিল, তবে এর কোনও উত্তর নেই।

এই বিলুপ্ত প্রায় পাখিদের রক্ষার জন্যই কাজ করে ফ্রিডম কনজারভেশন। তাদেরই উদ্যোগে দার্শান নাম ঈগলকে ব্যবহার করে এমন ছবি তোলার কাজে। নেহাতই প্রতীকী বিষয়। তবে এই বার্তা পৌঁছে গিয়েছে সর্বত্র।