মানব গুহ, কলকাতা: ‘দার্জিলিংকে কাশ্মীর বানাতে দেব না’, নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে যোগ দিতে এসে কলকাতা বিমানবন্দরে শুক্রবার এই ভাষাতেই বিমল গুরুংকে আক্রমণ করলেন বিনয় তামাং৷ তিনি আরও বলেন, দার্জিলিং এ আজকের ঘটনার দায় বিমল গুরুংকেই নিতে হবে৷

পাহাড় সমস্যা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে যোগ দিতে নবান্নে এলেন বহিষ্কৃত মোর্চা নেতা বিনয় তামাং৷ বিনয় তামাংকেই আপাতত: GTA এর দায়িত্ব দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ নবান্নে শুক্রবার এক গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক করছেন বিনয় তামাং ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মূলত পাহাড় সমস্যা নিয়েই আলোচনা হচ্ছে৷ কিন্তু তার আগেই পাহাড়ে ঘটে গেল এক মর্মান্তিক ঘটনা৷ মোর্চা নেতা বিমল গুরুংয়ের দেহরক্ষীদের গুলিতে মারা গেলেন দার্জিলিং থানায় কর্মরত এক সাব ইন্সপেক্টার৷ আর এর দায়ও বিমল গুরুংয়ের উপরই চাপিয়েছেন বিনয় তামাং৷

শুধু এক পুলিশ কর্মীর মৃত্যু নয়, পুলিশ বেশ কিছু একে ৪৭ ও অন্যান্য অস্ত্র-শস্ত্র উদ্ধার করেছে পাহাড় থেকে৷ রাজ্য পুলিশের আইজি আইনশৃঙ্খলা অনুজ শর্মা নবান্নে দাঁড়িয়ে পরিস্কার জানিয়েছেন, মোর্চার এই একে ৪৭ থেকে গুলি চালানোর পিছনে মাওবাদী ও উত্তরপূর্বের বিছিন্নতাবাদী সংগঠনগুলির সাহায্য আছে৷

কলকাতা বিমনবন্দরে বিনয় তামাং পরিস্কার বলেন যে, যেভাবে একে ৪৭ অস্ত্র মজুত করেছে বিমল গুরুং ও তার দলবল, তাতে রাজ্যের অভিযোগই প্রমাণিত হয়ে যায়৷ তিনি বলেন, এর পিছনে বিমল গুরুংই দায়ী, তাকে এর জবাবদিহি করতেই হবে৷ বিনয় তামাং পরিস্কার জানিয়ে দিয়েছেন, ‘পাহাড়ে যা ঘটেছে, তা দুঃখজনক৷ অস্ত্র যা উদ্ধার হয়েছে বোঝাই যাচ্ছে যোগ আছে মাওবাদীদের সঙ্গে৷ এর দায় নিতে হবে বিমল গুরুংকেই’৷

শুধু তাই নয়, বিনয় তামাং আজ অভিযোগ করেন, দার্জিলিংকে কাশ্মীর বানানোর চেষ্টা করছে বিমল গুরুং৷ কিন্তু তিনি কোনদিন বাংলার পাহাড়কে কাশ্মীরের পাহাড়ের মত বানাতে দেবেন না৷ তিনি পরিস্কার বলেন, দার্জিলিংকে কাশ্মীরের মত টেররিস্ট জেলা বানানোর চেষ্টা করছে গুরুং৷ তিনি ও পাহাড়বাসী কখনোই তা হতে দেবেন না৷ বলা যায়, প্রথমবারের জন্য বিমল গুরুংকে সরাসরি চ্যালেঞ্জ দিলেন বিনয় তামাং৷

পাহাড়ে অচলাবস্থা পুরোপুরি কাটিয়ে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনতেই শুক্রবারের বৈঠক বলে জানা গেছে৷ সেই সঙ্গে পাহাড়ে বিমল গুরুংয়ের প্রভাব কি করে একেবারে খর্ব করা যায় সেই নিয়েই একটা ব্লুপ্রিন্ট তৈরি হবে বলে জানা গেছে৷ এক পুলিশ কর্মীর মৃত্যুর পর বিমল গুরুংকে গ্রেফতারের দাবী যে জোরালো হবে তা জানেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তাই বিনয় তামাং এর সঙ্গে বসে মমতা যে গুরুংকে ধরার পরিকল্পনাও করবেন সেটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহল৷