ফাইল চিত্র

লখনউ: রাজ্যের দুই প্রান্তে দুই দলিতের অস্বাভাবিক মৃত্যুর খবর পাওয়া গেল৷ ঘটনাগুলি ঘটেছে উত্তর প্রদেশে৷

প্রথম ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর প্রদেশের ফতেরপুর জেলায়৷ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিনোদ কুমার জানিয়েছেন, ৩৪ বছর বয়স্ক এক দলিত ব্যক্তিকে অত্যাচার ও পরে খুন করার খবর পাওয়া গিয়েছে৷ এই অভিযোগে শক্তি সিং নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷ তিনি একটি ইট কারখানার মালিক৷ মঙ্গলবার বিকেলে সোহনলাল রেইড্যাশকে অত্যাচার ও হত্যার অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়৷

জাফারগঞ্জ থানার অরবিন্দ কুমার জানিয়েছেন, রেইড্যাশের পরিবারের মতে তাঁকে জোর করে তুলে নিয়ে গিয়েছিল সিং ও তার দলবল৷ যখন তাঁর ছেলে আশিস তাঁর বাবার বিষয়ে জিজ্ঞাসা করেন, সিংয়ের ‘ভাড়াটে গুন্ডারা’ তাকে তাড়িয়ে দেন৷ এরপর বুধবার সিংয়ের টিউবওয়েলের কাছে একটি ব্যাগ দেখতে পাওয়া যায়৷ তার মধ্যে থেকে পাওয়া যায় রেইড্যাশের দেহ৷ অশিস জানিয়েছেন একথা৷ তার পরই তিনি ১০০ ডায়াল করে পুলিশকে খবর দেন৷

এমনই আরও একটি ঘটনা ঘটেছে ওই রাজ্যে৷ কানপুর আইআইটির এক ডক্টরেট ছাত্রের দেহ ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার হয়েছে৷ হোস্টেলে নিজের ঘর থেকেই ওই ছাত্রের দেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ৷ তাঁর নাম ভীম সিং৷ পিএইচডি-র তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন তিনি৷ থাকতেন ফিরোজাবাদে৷

সিনিয়র পুলিশ সুপার অখিলেশ কুমার জানিয়েছেন, বন্ধুরা জানিয়েছে ভীম সিং গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে৷ আইআইটি কানপুরের ডেপুটি ডিরেক্টর মনীন্দ্র আগারওয়াল জানিয়েছেন, একটি চিঠি আবিষ্কৃত হয়েছে৷ সেটি ফরেন্সিক পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে৷ ঘটনার তদন্ত চলছে৷