প্রতীতি ঘোষ,বারাকপুর : করোনা আবহের মধ্যেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৭৫ দিন পর শনিবার সকাল থেকে ভক্তদের জন্য খুলে গেল দক্ষিণেশ্বরের কালী মন্দির।

মন্দির কমিটির স্বাস্থ্যবিধি মেনে এদিন সুশৃঙ্খল ভাবেই মা ভবতারিণীর কাছে করোনা মুক্ত সমাজ গড়ার প্রার্থনা জানিয়ে পুজো দিচ্ছেন অগনিত ভক্তরা ।

করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় লকডাউনের মধ্যে প্রায় ৭৫ দিন বন্ধ ছিল ঐতিহাসিক দক্ষিণেশ্বরের কালী মন্দির। প্রায় আড়াই মাস পর শনিবার সকাল থেকে অগণিত ভক্তদের জন্য খুলে দেওয়া হল মন্দিরের গেট ।

বৃষ্টি বিঘ্নিত সকাল থেকেই মন্দির কমিটির নতুন নির্দেশিকা মেনে লম্বা লাইন দেখা গেল মন্দিরে প্রবেশের মুখে । মন্দির চত্বরে দেখা গেল, স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভক্তরা ৬ ফুট দূরত্বে লাইনে দাঁড়িয়ে ধীরে ধীরে নিরাপত্তা পরীক্ষা ঘরের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে ।

সেখানে প্রত্যেক ভক্তের শারীরিক তাপমাত্রা দেখে নেওয়া হচ্ছে থার্মাল স্ক্রিনিং এর মাধ্যমে । সুস্থ শরীরে ভক্তরা ফুল, প্রসাদ, আলতা, সিঁদুর ছাড়াই মন্দিরে পুজো দিতে প্রবেশ করছেন । মন্দিরে আসা ভক্তরা যাতে সম্পূর্ণ সুরক্ষিত ও নিরাপদ থাকেন, সেই কারনে মন্দির কমিটি করোনা ভাইরাসের মোকাবিলায় নতুন স্বাস্থ্য বিধি লাগু করেছে দক্ষিণেশ্বর মন্দির চত্বরে ।

সুশৃঙ্খল ভাবে শনিবার সকাল থেকে দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে অগনিত ভক্তরা উৎসাহ নিয়ে পুজো দিলেন। প্রত্যেকেই মায়ের কাছে প্রার্থনা করলেন যাতে দ্রুত করোনা মুক্ত সুস্থ সমাজ ফিরে আসে।

এদিন দক্ষিণেশ্বর মন্দির চত্বরে ছিল কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা। একদিকে বারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের পুলিশ কর্মীরা এবং অন্যদিকে মন্দিরের নিজস্ব নিরাপত্তা রক্ষী মন্দির চত্বরে মোতায়েন ছিল।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও