ফাইল ছবি

কলকাতাঃ  রাজ্য সরকারি কর্মীদের মহার্ঘ ভাতা(ডিএ) মামলায় বাড়ছে জটিলতা! নির্ধারিত সময়ে জমা পড়ল না কোনও হলফনামা। স্যাটের কাছে এই হলফনামা জমা দেওয়ার কথা ছিল। ২৪ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সরকারপক্ষকে হলফনামা জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল স্যাট।

এরপর ৩ অক্টোবরের মধ্যে মামলার মূল আবেদনকারী কনফেডারেশন অব স্টেট গভর্নমেন্ট এমপ্লয়িজের পক্ষ থেকে হলফনামা জমা দিতে বলা হয়েছিল। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মলয় মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, তা নিয়ে আইনজীবীর সঙ্গে তাঁরা আলোচনা করেছেন। সরকারের তরফে হলফনামা জমা না পড়লে তাঁরাও কোনও হলফনামা দেবেন না। আগামী ৪ অক্টোবর স্যাটে মামলাটি শুনানির জন্য উঠবে। তখনও বিষয়টা স্যাটের নজরে আনা হবে।

সরকারি সূত্রে জানা গিয়েছে, অর্থদপ্তরের কাছ থেকে হলফনামা পেশের ব্যাপারে কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি। এই কারণে সরকারি আইনজীবী স্যাটের কাছে হলফনামা জমা দিতে পারেননি। হলফনামা পেশ করার জন্য রাজ্য সরকার ডিএ-র ব্যাপারে কী বিবেচনা করছে, সেটা আগে জানতে হবে।

গত কয়েকমাস আগেই রাজ্য সরকারি কর্মীদের ডিএ সংক্রান্ত মামলার রায় দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। রায়ে আদালত ডিএ রাজ্য সরকারি কর্মীদের অধিকার বলে রায় দেয়। একই সঙ্গে মামলা স্যাটে শুনানির জন্যে বলা হয়। গত ৩১ আগস্ট মামলার রায় দেওয়ার সময় দুটি বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার দায়িত্ব স্যাটকে দেওয়া হয়। দুই মাসের মধ্যে মামলার ফয়সালা করতে বলা হয়। তিন সপ্তাহের মধ্যে সরকার পক্ষকে ও তার এক সপ্তাহের মধ্যে মামলাকারীকে হলফনামা জমা দেওয়ার বিষয়টি হাইকোর্টের রায়ে ছিল। কিন্তু এখনও পর্যন্ত এই বিষয়ে সরকারের তরফে কোনও হলফনামা জমা না পড়ায় বাড়ছে জটিলতা। দিল্লির বঙ্গভবন ও চেন্নাইয়ের ইয়ুথ হস্টেলের কর্মীদের কেন্দ্রীয় হারে ডিএ দেওয়ার বিষয়েও সিদ্ধান্ত নিতে বলা হয়েছে স্যাটকে।