স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ঘূর্ণিঝড় ফণীর পূর্বাভাসের পরই নবান্নে জরুরী বৈঠক হয়েছিল৷ ফের আজ ফণী-র মোকাবিলায় নবান্নে উচ্চ পর্যায়ের প্রশাসনিক বৈঠক হয়ে৷ বিভিন্ন দফতরের আধিকারিকদের নিয়ে হয়েছে ওই বৈঠক৷

নবান্ন সূত্রে খবর, উপকূলবর্তী এলাকায় যে সব জেলায় ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে সেই সব স্থানে পাঠানো হচ্ছে খাবার ও ত্রিপল৷ এছাড়া যেখানে কাঁচা বাড়ি রয়েছে সেখানকার মানুষদের অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে৷ প্রস্তুত রাখা হয়েছে হাসপাতালগুলোকে৷ সেখানে পাঠানো হচ্ছে ওষুধ৷ এবং ত্রিপল ও খাবার৷

এদিন রাজ্যের মুখ্য সচিব মলয় দের উপস্থিতিতে পুলিশ-প্রশাসনের আধিকারিকদের নিয়ে একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক হয়৷ সেখানে অন্যান্য দফতরের আধিকারিকরাও ছিলেন৷ এছাড়া জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী, উপকূল রক্ষী বাহিনীর কর্তারাও এই বৈঠকে ছিলেন বলে জানা গিয়েছে। বিশেষ করে ঝাড়গ্রাম, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার জেলাশাসকদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে আলোচনা হয়। পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে স্থানীয় প্রশাসনকে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে৷

স্থানীয় প্রশাসনকে আরও একটি বিষয় এর উপর নজরে রাখতে বলা হয়েছে, তা হল মানুষ যাতে আতঙ্কিত হয়ে না পরে৷ এবং তাদের পাশে থাকা৷