নয়াদিল্লিঃ  শক্তি বাড়িয়ে ক্রমশ উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে ঘুর্ণিঝড়। ঘন্টায় ২০৫ কিলোমিটার বেগে আছড়ে পড়তে চলেছে ভয়ঙ্কর এই হ্যারিকেন৷ ইতিমধ্যে দেশের পূর্বপ্রান্তের উপকূল এলাকায় জারি করা হয়েছে সতর্কতা৷ ফেনীর জেরে পর্যটকদের পুরীতে থাকতে নিষেধ করছে স্থানীয় প্রশাসন৷ আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে দ্রুত পুরী ছাড়ার জন্যে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস শুক্রবার দুপুরে ঘন্টায় ১৭৫-১৮৫ কিলোমিটার থেকে ২০৫ কিলোমিটার বেগে ঝড় বইবে৷ ওডিশা, পশ্চিমবঙ্গ, অন্ধ্রপ্রদেশের উত্তর উপকূলে এর প্রভাব পড়বে বলে জানা গিয়েছে৷ পুরীর উপর দিয়েও বয়ে যাবে এই ঝড়৷ ইতিমধ্যে বাংলার পড়শি রাজ্যে হাই-অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে।

ঘুর্নিঝড়ের প্রভাব যথেষ্ট পড়বে পশ্চিমবঙ্গেও। বিশেষ করে কলকাতার উপর দিয়ে বয়ে যাবে প্রবল ঝড়। সাবধান থাকার জন্যে এই মর্মে ইতিমধ্যে নোটিশ জারি করেছে দিল্লির মৌসম ভবন। মৌসম ভবনের তরফে দেওয়া নোটিশে কলকাতার জন্যে হলুদ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। হলুদ নোটিশে কার্যত সাবধান করা হয়েছে কলকাতাবাসীকে।

বলা হয়েছে, এই ঘুর্নিঝড়ের প্রভাবে কলকাতায় প্রবল বেগে ঝড় বইতে পারে। ঝড়ের গতিবেগ হতে পারে ৮০ থেকে ১০০ কিলোমিটার। ফণির প্রভাবে শুক্রবার ৩ তারিখ ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে পূর্ব মেদিনীপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রামে। ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে কলকাতা, উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হাওড়া ও হুগলিতেও। ফলে বিশেষ সতর্কতা নেওয়ার জন্যে বলেছে মৌসম ভবন।