মুম্বই: বিগত এক শতকে প্রথম কোনও ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়তে চলেছে মুম্বইয়ের ওপর। মহারাষ্ট্র ও গুজরাত উপকূলে এই ঝড় আছড়ে পড়বে। মনে করা হচ্ছে, মুম্বই থেকে ১১০ কিমি দূরে আলিবাগের কাছে এই ঝড় আছড়ে পড়বে। এরফলে সমুদ্রে জলের ঢেউ এর উচ্চতাও ৬ ফুট বৃদ্ধি পাবে।

বুধবার দুপুরের পরেই এই ঝড় আছড়ে পড়বে। ইতিমধ্যেই গোয়া, সান্তাক্রুজ ও কোলাবায় ভারী বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার থেকেই ঝড়ে ক্ষতির আশঙ্কায় উপকূলবর্তী এলাকা থেকে সরানো হচ্ছে মানুষজনকে। মুখ্যমন্ত্রীর দফতরের তরফে বলা হয়েছে, “মুম্বই শহরে বাস করা বস্তিবাসীদের, বিশেষ করে নিচু এলাকার বাসিন্দাদের অন্যত্র সরানো হয়েছে”।

সংবাদসংস্থা জানাচ্ছে, ইতিমধ্যে গুজরাত উপকূল থেকে ২০ হাজার মানুষকে সরানো হয়েছে। প্রাণহানি এড়াতে আরও মানুষজনকে সরানো হচ্ছে। তৈরি রয়েছেন কোস্ট গার্ড এবং ইন্ডিয়ান নেভি। জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দলকেও তৈরি রাখা হয়েছে। সাইক্লোনের তাণ্ডব কিছুটা ঠান্ডা হলেই উদ্ধার কাজ শুরু হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

তবে ইতিমধ্যেই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র, চিকিৎসাধীন বহু কোভীড রোগী। তাই সাইক্লোনের সময় অন্যান্য জায়গায় লোডশেডিং হলেও হাসপাতালগুলি যাতে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন না হয় সেদিকেও নজর দেওয়া হচ্ছে। আরব সাগরে তৈরি হওয়া ঘূর্ণিঝড় নিসর্গের দিকে নজর দিয়ে মুম্বই সিটি, মুম্বই শহরতলি জেলা, থানে, পালঘর, রায়গড়, রত্নগিরি এবং সিন্ধু দুর্গে জারি করা হয়েছে সতর্কতা, তেমনটাই জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে।

উল্লেখ্য মাত্র এক সপ্তাহ আগেই বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট আমফান আছড়ে পড়ে পশ্চিমবঙ্গ ও ওড়িশা উপকূলে, ফলে প্রায় ১০০ লোকের মৃত্যু হয় এবং ক্ষতিগ্রস্তের সংখ্যা লক্ষাধিক। এর ধাক্কা কাটতে না কাটতেই ফের হাজির ঘূর্ণিঝড় নিসর্গ।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV