ম্যানিলা:  স্থলভাগের দিকে হু হু করে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড়। তার গতিবেগ এতটাই যে শুধুমাত্র আর ঘূর্ণিঝড় বলা যাচ্ছে না তাঁকে। এই মুহূর্তে ‘কালমেগি’ নামে এই ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়তে চলেছে ফিলিপিন্স উপকূলের উপরে।

পড়ুন আরও- ঘন্টায় ১৫০ কিমি, আসছে বুলবুলের চেয়েও শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়

এই ঝড়ের গতিবেগ হবে ঘণ্টায় কমপক্ষে ১৫০ কিলোমিটার। তবে আবহাওয়াবিদদের আশঙ্কা গতিবেগ আরও বাড়তে পারে। এর আগে টানা চার দিন ধরে প্রশান্ত মহাসাগরের বুকে তাণ্ডব চালিয়েছে এই টাইফুন। এবার তার লক্ষ্য উপকূল। বেশ কিছুক্ষণ টাইফুন তাণ্ডব চালাবে ফিলিপাইন উপকূলে। তারপর এই ঝড় শক্তি হারিয়ে দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে চলে যাবে। ফিলিপাইনের উপকূল অঞ্চল অতিক্রম করতে ১২ ঘন্টা সময় নেবে এই টাইফুন।

পড়ুন আরও- সরকারি বিজ্ঞাপনে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি কাটা, বাঁকুড়ায় শাসক বিরোধী তরজা তুঙ্গে

ইতিমধ্যেই এই ঘূর্ণিঝড়ের জেরে সমুদ্র তীরবর্তী এলাকায় প্রবল বৃষ্টি শুরু হয়েছে। প্রবল ঝোড়ো হাওয়াও শুরু হয়েছে সে দেশের উপকূলবর্তী এলাকায়। যদিও স্থানীয় আবহাওয়া দফতর মনে করছে স্থলভূমিতে আছড়ে পড়লে এটি অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় অনেকটাই শক্তি হারাবে। তবে কোনও ভাবেই স্থানীয় প্রশাসন ঝুঁকি নিতে নারাজ। যেভাবে সেটি ধেয়ে আসছে তা আছড়ে পড়লে ভয়ঙ্কর ক্ষয়ক্ষতি হবে বলে মনে করছে ফিলিপাইন প্রশাসন। আর সেই কারণে উপকূলবর্তী এলাকা থেকে ৫ হাজার মানুষকে নিরাপদে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তৈরি রাখা হয়েছে পর্যাপ্ত ত্রাণ। বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরকেও সবরকম পরিস্থিতির জন্যেও তৈরি রাখা হয়েছে।

জানা যাচ্ছে, ফিলিপিন্সের কাগায়ান প্রদেশের ওপর এই ঝড় আছড়ে পড়ার কথা। এখান দিয়েই স্থলভাগে প্রবেশ করবে সেটি। তার আগে এই বিশাল এলাকা জুড়ে প্রবল বৃষ্টি শুরু হয়েছে। তবে বিধ্বংসী এই ঝড়ের কারণে তীব্র আতঙ্ক তৈরি হয়েছে সর্বত্র। তবে বারবার ফিলিপিন্স প্রশাসনের তরফে সাধারণ মানুষকে আশ্বাস করে সাবধান এবং সতর্ক থাকার জন্যে বলা হচ্ছে।