ওয়াশিংটনঃ  আমেরিকাতে আছড়ে পড়ল টর্নেডো। হঠাত এই টর্নেডোর আঘাতে পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার থেকে বজ্রঝড় ও শিলাবৃষ্টিসহ ব্যাপক একটি ঝড় যুক্তরাষ্ট্রের এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্ত পর্যন্ত তাণ্ডব চালানোর পর পূর্ব উপকূলে মুষল ধারে বৃষ্টি শুরু হয়েছে। অ্যাঞ্জেলিনা কাউন্টি শেরিফ ডিপার্টমেন্টের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, শনিবার টেক্সাসের পোলকে ঝড়ে উপড়ে পড়া গাছ চাপায় একটি গাড়ি ভিতরে থাকা তিন ও আট বছর বয়সী দুই ভাইবোন নিহত হয়েছে। একইদিন সন্ধ্যায় লুইজিয়ানার মনরোতে বৃষ্টির জলে উপচে পড়া ড্রেনের মধ্যে ডুবে ১৩ বছর বয়সী সেবাস্টিয়ান ওমর মার্টিনেজের মৃত্যু হয় বলে জানিয়েছেন উয়াশিটা প্যারিস শেরিফ দফতরের ডেপুটি গ্লেন স্প্রিংফিল্ড।

মিসিসিপির গভর্নর ফিল ব্রায়ান্ট জানিয়েছেন, শনিবার কয়েকটি টর্নেডো ১৭টি কাউন্টিতে তাণ্ডব চালিয়েছে। এতে একজন নিহত ও ১১ জন আহত হয়েছেন। এরপর গোটা এলাকার ২৬ হাজার বাড়ি ও বিভিন্ন ব্যবসায়ীক সংস্থা বিদ্যুৎবিহীন রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

প্রবল ঝড়বৃষ্টির কারণে রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে দু হাজার ৩০০ ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। ফ্লাইট বাতিলের অধিকাংশ ঘটনাই শিকাগোর বিমানবন্দরগুলোতে, টেক্সাসের হিউস্টনে, নর্থ ক্যারোলাইনার শার্লোটে, পিটসবার্গ, কলম্বাস, ওহিওতে এবং পূর্ব উপকূলের বিমানবন্দরগুলোতে ঘটেছে বলে ফ্লাইটঅ্যাওয়ার ডটকমের তথ্যে জানা গেছে। সোমবার সকাল পর্যন্ত ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া, নর্থ ক্যারোলাইনার অধিকাংশ এলাকা, ভার্জিনিয়া, পেলসিনভ্যানিয়া, মেরিল্যান্ড এবং ওহিও ও নিউ ইয়র্কের কয়েকটি অংশে টর্নেডোর সম্ভাবনা আছে বলে সতর্ক করা হয়েছে।

ওই এলাকাগুলোতে ঘন্টায় সর্বোচ্চ ১১০ কিলোমিটার বেগে ঝড়সহ ব্যাপক বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে জানিয়েছেন ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিসের (এনডব্লিউএস) ওয়েদার প্রেডিকশন সেন্টারের আবহাওয়াবিদ ডেভিড রথ।