লন্ডন:  প্রবল ঝড় সঙ্গে ব্যাপক বন্যা। বিপর্যস্ত গোটা ব্রিটেন। সাউথ ওয়েলস এবং ইংল্যান্ডের বেশ কয়েকটি জায়গা খুবই খারাপ অবস্থা। এতটাই খারাপ যে অনেকেই পরিস্থিতিরে গুরুতর বলে জানাচ্ছেন। ইতিমধ্যে এই সমস্ত জায়গায় খোলা হয়েছে জরুরি বিভাগ। বিধ্বংসী ঝড় ডেনিস দ্বিতীয় দিনের মতো এলাকাগুলির ওপর দিয়ে দ্রুতগতিতে বয়ে যায়। ঝড়ের সঙ্গে ধেয়ে আসা প্রবল বৃষ্টিতে নদীর জলের উপচে বন্যা দেখা দেয়। এলাকার ঘরবাড়িগুলি নদীর ডুবে যাওয়ার আশঙ্কা। আর এরপরেই উদ্ধারকাজে নামে পুলিশ ও দমকল কর্মীরা। বন্যাকবলিত এলাকার বহু বাসিন্দাকে সরিয়ে নেওয়া হয়। রেকর্ড সংখ্যক বন্যা সতর্কতা জারির কথা জানায় পরিবেশ সংস্থাগুলি।

ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের পরিবেশ সংস্থাগুলো জানায়, সাউথ ওয়েলসে টাফ নদী ও নিথ নদীর ও ওয়েলস-ইংল্যান্ড সীমান্ত এলাকায় টিম নদীর চারটি এলাকায় মারাত্মক বন্যা হতে পারে বলে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। বন্যা এসব এলাকার বাসিন্দাদের জীবনের জন্য হুমকিও হয়ে উঠতে পারে। এর পাশাপাশি রবিবার বিকালে ইংল্যান্ডে আরও ২৪০টি এলাকায়, ওয়েলসের ৭০টি এলাকায় এবং স্কটল্যান্ডের ২০টি এলাকায় বন্যা সতর্কর্তা জারি করা হয়েছে, এমনটাই জানিয়েছে সংবাদসংস্থা রয়টার্স।

অন্যদিকে ওয়েলসের পুলিশের তরফে ইতিমধ্যে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। যেখানে বলা হয়েছে, পুলিশ-প্রশাসন বন্যা ও ভূমিধসের বহু ঘটনার মোকাবিলা করছে। বাড়িগুলি থেকে বাসিন্দাদের সরিয়ে নিয়ে যেতে হচ্ছে আমাদের। আর এসবের কারণে কিছু এলাকা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে, তবে ওইসব এলাকার বাসিন্দাদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে কাজ করছে জরুরি বিভাগের কর্মীরা।

একই সঙ্গে পুলিশের তরফে আরও জানানো হয়েছে যে, প্রবল ঝড়-বৃষ্টির পর মাত্র কয়েকঘন্টাই হাতে পাওয়া গিয়েছে। আর সেই কয়েক ঘন্টায় যুদ্ধকালীন তৎপরতায় আটকে পড়া বহু বাসিন্দাকে উদ্ধার করা হয়। খালি করা হয়েছে বাড়িগুলিকে।

এর আগে ব্রিটেনে ঝড় কিয়ারার কারণে সড়ক যোগাযোগ বিঘ্নিত হয়, ইংল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলে বহু বাড়ি জলের তলায় তলিয়ে যায়। কয়েক হাজার গ্রাহকের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিল, এর মাত্র এক সপ্তাহ পর ঝড় ডেনিস ব্রিটেনে আঘাত হানে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ