নয়াদিল্লি : সীমান্ত সমস্যা কিছুটা হলেও কেটেছে। বরফ গলার ইঙ্গিত মিলেছে দুই দেশের কমান্ডার স্তরের সামরিক বৈঠকে। তবে চিন নিজের ভাবমূর্তি থেকে বেরোতে রাজী নয়। এবার সীমান্ত সমস্যা কাটলেও সাইবার হানা (Cyber attack) চালিয়ে ভারতের ক্ষতি করতে চাইছে বেজিং। এমনই রিপোর্টে প্রকাশ। ২০২০ সালে বড়সড় বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের মুখে পড়ে মহারাষ্ট্র। মূলত মুম্বইয়ের বিস্তীর্ণ এলাকায় বিদ্যুৎ বিপর্যয় (Power Outage in Mumbai) মারাত্মক আকার ধারণ করে। এই ঘটনা চিনের সাইবার হানার (Cyberattack by China) ফলেই ঘটেছে বলে জানাচ্ছে একটি মার্কিন কোম্পানি।

তাদের সমীক্ষা বলছে একাধিকবার ভারতে সাইবার হামলা চালিয়েছে চিন। উদ্দেশ্য প্রয়োজনীয় তথ্য চুরি। মহারাষ্ট্র পুলিশের সাইবার শাখার স্পেশাল ইনস্পেক্টর যশস্বী যাদব জানান, পূর্ব লাদাখে ভারত চিন সীমান্তে দুই দেশের সেনার মধ্যে সংঘর্ষ হওয়ার পর থেকেই এই হামলার পরিমাণ বেড়েছে। এই বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করেছে মহারাষ্ট্রের সাইবার সেল। চিনের চেংদু প্রদেশ থেকে মূল সাইবার হানা হচ্ছে বলে খবর। মহারাষ্ট্রের সাইবার সেল জানাচ্ছে, কমপক্ষে ৪০ হাজার ৩০০টি সাইবার হামলা করা হয়েছে ভারতের বিভিন্ন সেক্টরে। ফলে সাবধানবাণী জারি করছেন তাঁরা।

উল্লেখ্য, ১৯৯০ সাল থেকেই চিন নিজেদের সাইবার স্পেস ডকট্রিন তৈরির চেষ্টা করছে। ২০০৯ সালের ইনফরমেশন ওয়ারফেয়ার মনিটর রিপোর্ট ‘ট্র্যাকিং ঘোস্টনেট’ অনুযায়ী, তদন্তের পর দেখা গিয়েছে, ১৯৯০ সালের শেষের দিক থেকে সাইবার স্পেস ডকট্রিন তৈরির চেষ্টা করছে চিন যা চিন সেনার আধুনিকীকরণের অংশ।

সম্প্রতি করোনা পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে সাইবার হামলা বাড়িয়েছে এই দেশগুলো, বিশেষত চিন। সাইবার অপরাধীরা এক্ষেত্রে করোনা ভাইরাসের আপডেট দেওয়ার নামে ভুয়ো মেল পাঠাচ্ছে। জানানো হচ্ছে এই মেলগুলিতে নাকি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য রয়েছে, করোনা থেকে নিরাময়ের জাল ওষুধ বিক্রির মেল আসছে।

দেওয়া হচ্ছে ভুয়ো তথ্য, পরামর্শ। মোট ছটি দেশের হ্যাকাররা সাইবার হামলার সংখ্যা বাড়িয়েছে। সাইবার হামলার হুমকি আসছে মূলত চিন থেকে। এছাড়াও রাশিয়া, পাকিস্তান, ইউক্রেন, ভিয়েতনাম ও উত্তর কোরিয়া থেকে হুমকি মিলছে সাইবার হানার। ধারাবাহিকভাবে হামলাও চলছে বলে জানিয়েছেন সাইবার বিশেষজ্ঞরা।

তবে এই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত ভারত সরকারের কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। এর আগে জানা গিয়েছিল চিনা সেনার গোপন ইউনিট ৬১৩৯৮-কে এই কাজে নিযুক্ত করা হয়েছে। যারা নেট দুনিয়ায় হামলা চালিয়ে, হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে ভারতের প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য লুঠ করার কাজ চালাবে বলে জানা গিয়েছে।

রিপোর্ট বলছে ভারতের বিরুদ্ধে ফের সাইবার হামলার ছক কষেছে চিন। চিনা সেনার সাইবার হামলা শাখা এই পরিকল্পনা করছে, যাদের নিজস্ব কোড রয়েছে। ভারতের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতে তারা পরিকল্পনায় শান দিতে শুরু করেছে। বেশ কয়েক মাস ধরেই চিনা সাইবার হামলা সংক্রান্ত একাধিক রিপোর্ট হাতে এসেছে গোয়েন্দাদের।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.