গুয়াহাটি: থমথমে অসমের হালাইকান্দি জেলা৷ বন্ধ দোকানপাট৷ শুনশান রাস্তাঘাট৷ অষোঘিত বন্ধের চেহারা নিয়েছে অসমের হালাইকান্দি জেলা৷ এরই মধ্যে জেলা প্রশাসন সেখানে কারফিউ জারি করেছে৷ চাওয়া হয়েছে সেনার সাহায্য৷

শুক্রবারের প্রার্থনা শেষে এক সম্প্রদায়ের মুষ্টিমেয় কিছু লোক দোকানে ভাঙচুর শুরু করে৷ অন্য সম্প্রদায়ের মানুষদের টার্গেট করে তারা৷ অন্য সম্প্রদায়ের মানুষ রুখে দাঁড়ায়৷ তারপরই সংঘর্ষ বড় আকার নিতে শুরু করে৷ একে অপরকে লক্ষ্য করে পাথর ছুড়তে থাকে৷ গাড়ি ও বাইকে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়৷

সংঘর্ষ থামাতে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ৷ পাঠানো হয় ব়্যাফ ও আধা সামরিক বাহিনী৷ সংঘর্ষকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়া হয়৷ এদিকে দু’পক্ষের সংঘর্ষের মাঝে এক ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়৷ তার শরীরে গুলি এসে লাগে৷ সঙ্গে সঙ্গে পাঠানো হয় হাসপাতালে৷ এছাড়া সংঘর্ষের জেরে অনেকে আহত হয়৷ কয়েক ঘণ্টার চেষ্টা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা গেলেও ফের তা ছড়িয়ে না পরে তার জন্য কারফিউ জারি করা হয়েছে৷

জেলা প্রশাসনের তরফে জানানো হয়, সংঘর্ষে ১৫টি গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়৷ ১২টি দোকানে লুঠতরাজ চালানো হয়৷ ১২ জন আহত হয়৷ তাদের মধ্যে তিন জনের অবস্থা গুরুতর৷ কারফিউ এর পাশাপাশি ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে৷

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মসজিদের বাইরে বাইক রাখা নিয়ে ঝামেলার সূত্রপাত৷ সেই কারণে মসজিদের একটি অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয় বলে দাবি৷ ব্যবস্থা নিতে পুলিশের দ্বারস্থ হয় তারা৷ এফআইআর দায়ের করা হয়৷ সেই সঙ্গে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলা হয়, অপরাধীরা ধরা না পড়লে শুক্রবারের নমাজ রাস্তায় পড়া হবে৷ তারপরেই এদিন সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে৷

রাজ্যের মন্ত্রী পরিমল শুক্লাবৈদ্য জেলার মানুষদের শান্তি বজায় রাখার আর্জি জানান৷ তিনি বলেন, দুই সম্প্রদায়ের মধ্যে সংঘর্ষে বেশ কিছু দোকানপাট নষ্ট হয়৷ গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়৷ খবর পেয়ে অতিরিক্ত বাহিনী পাঠানো হয়৷