মুম্বই: ২০২১ আইপিএলে শনিবার অভিযান শুরু করছে তিনবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সুপার কিংস৷ প্রথম ম্যাচে ধোনিদের প্রতিপক্ষ দিল্লি ক্যাপিটালস৷ কিন্তু তার আগে নিজেদের মধ্যে প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলল ধোনি অ্যান্ড কোং৷

২০২০ আইপিএলে মোটেই ভালো যায়নি সুপার কিংসের৷ এবার নতুন করে শুরু করতে মরিয়া ধোনিবাহিনী৷ ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে দিল্লির বিরুদ্ধে ম্যাচ নামার আগে প্র্যাকটিস ম্যাচে দারুণ ছন্দে দেখা গেল মাহিকে৷ বুধবার সিএসক তাদের অফিসিয়াল টুইটারে নিজেদের মধ্যে প্র্যাকটিস ম্যাচের ভিডিও আপলোড করা হয়েছে৷ যেখানে দেখা যাচ্ছে দুই দলে ভাগ করে নিজেদের মধ্যে ম্যাচ খেলছেন সিএসকে প্লেয়াররা৷

১৪৮ সেকেন্ডের ম্যাচের হাইলাইটের ভিডিও-তে দেখা যাচ্ছে, দুর্দান্ত স্কোয়ার কাট মারছেন ধোনি৷ পাশাপাশি প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানকে তাঁর ট্রেডমার্ক ঢংয়ে স্টাম্প-আউট করতেও দেখা গিয়েছে সিএসকে অধিনায়ককে৷ ব্যাটসম্যান ক্রিজের একটু বাইরে ছিলেন৷ ধোনি তাঁর নিজের ঢংয়েই ব্যাটসম্যানকে টিজ করে বেল ফেলেন৷ অর্থাৎ সেই আগের ধোনিকে দেখা গেল আইপিএলের চতুর্দশ সংস্করণ শুরু হওয়ার আগেই৷

সিএসকে ফ্যানেরা ধোনিকে ছাড়াও ভিডিওতে দেখতে পাবেন সুরেশ রায়না, চেতেশ্বর পূজারা, ডোয়েন ব্র্যাভো, রবীন্দ্র জাদেজা, স্যাম কারেন, মোয়েন আলি, দীপক চাহার এবং শার্দুল ঠাকুরকে৷ ভিডিওতে দেখা গিয়েছে ধোনি ও সুরেশ রায়নাকে ছক্কা হাঁকাতে৷ জাদেজাকে ফ্লিক করে রান নিতে দেখা গিয়েছে রায়নাকে৷ এছাডা়ও ম্যাচের শেষ ওভারে দীপক চাহার তুলে নেন রবিন উথাপ্পা এবং রবীন্দ্র জাদেজাকে৷

গত আইপিএলে প্লে-অফে উঠতে পারেনি তিনবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সুপার কিংস৷ প্রথমবার প্লে-অফে উঠতে ব্যর্থ হয় ধোনির সুপার কিংস৷ মরু শহরে করোনা আবহে ২০২০ আইপিএল থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন রায়না৷ ব্যক্তিগত কারণে টুর্নামেন্ট শুরুর আগে সংযুক্ত আরবআমিরশাহী থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন ধোনির ডেপুটি রায়না৷

চতুর্দশ আইপিএলে এক গুচ্ছ মাইলস্টোনের সামনে রয়েছেন মাহি৷ প্রথম থেকে টানা সুপার কিংসকে নেতৃত্ব দেওয়া ধোনি ইতিমধ্যেই তিনবার ট্রফি জিতেছেন৷ যা আইপিএলের ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বাধিক (পাঁচবার ট্রফি জিতেছেন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের রোহিত শর্মা)৷ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পাশাপাশি আইপিএলেও অন্যতম সফল ক্যাপ্টেন ধোনি৷ ২০২১ আইপিএলেও মাহির সামনে রেকর্ডের হাতছানি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।