স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা : বিশ্ববাজারে তেলের দাম কমেছে। কিন্তু তার কোনও প্রভাবই পড়ছে না কলকাতা সহ সারা দেশে। লকডাউনের কারণে তেলের দামবৃদ্ধি বন্ধ থাকার পর একবার যখন তা বাড়তে শুরু করেছে, তখন তা লাগাম দেওয়াই যাচ্ছে না। একটানা ৮২ দিন তেলের দামে নিম্নগতি বজায় থাকার পর দেশের তেল কোম্পানিগুলি ৭ জুন থেকে বাড়িয়ে চলেছে তেলের দাম। এখনও পর্যন্ত এই ১৪ দিনে পেট্রোল ও ডিজেলে ৭ টাকারও বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে।

শুক্রবার তুলনায় শনিবার ভারতের বিভিন্ন শহরে পেট্রোলের দাম লিটারপ্রতি ৫১ থেকে ৫৩ আর ডিজেলের দাম লিটারপ্রতি ৬১ থেকে ৬৩ পয়সা বাড়ানো হয়েছে। এর ফলে কলকাতায় পেট্রোল আর ডিজেলের দাম বেড়ে হয়েছে ছিল যথাক্রমে ৮০.৬২ টাকা আর ৭৩.০৭ টাকা। আজ রবিবার সেই দাম বেড়েছে ৩৩ ও ৫৪ পয়সা। দাম হল ৮০.৯৫ ও ৭৩.৬১ টাকা। দিল্লিতে পেট্রোলের দাম ছিল ৭৮.৮৮ টাকা আর ডিজেলের দাম বেড়ে হয়েছে ৭৯.২৩ টাকা। চেন্নাইয়ে পেট্রোল আর ডিজেলের দাম ৮২.২৭ থেকে বেড়ে হয়েছে ৮২.৫৮ টাকা। মুম্বইয়ের এই দাম ৮৫.৭০ থেকে বেড়ে হয়েছে যথাক্রমে ৮৬.০৪ টাকা। সারা দেশেই গত ৭ জুন থেকে ধাপে ধাপে বাড়ছে জ্বালানি তেলের দাম। তবে শহর বিশেষে বিভিন্ন রাজ্য সরকারের স্থানীয় শুল্কের তারতম্যের ফলে এই মূল্যবৃদ্ধির পরিমাণও ভিন্ন।

তবে বিশ্ববাজারের পরিস্থিতি যা-ই হোক না কেন, ভারতে পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম আগামী দিনে আরও বাড়তে পারে। কারণ, কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারগুলি করোনা-সংকট কাটিয়ে উঠতে জ্বালানির উপর বাড়তি শুল্ক ধার্য করতে পারে বলেও সূত্রের খবর। করোনাভাইরাসের জেরে হওয়া লকডাউনের সময় দু’মাস পেট্রল-ডিজেলের চাহিদা ৭০% কমে যাওয়ায় রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থাগুলি পেট্রল-ডিজেলের দাম বাড়ায়নি, যদিও গত মাসেই দেশে তেল পরিশোধন সংস্থাগুলির পেট্রল-ডিজেলের উৎপাদন খরচ এবং বিক্রির দামের ফারাক লিটার পিছু চার-পাঁচ টাকা বাড়ে। এ মাসে আনলক শুরু হতেই রাস্তায় যানবাহন বেড়েছে। পাশাপাশি চাহিদাও বেড়েছে পেট্রল-ডিজেলের। ২০ এপ্রিল থেকেই সরকার দফায় দফায় লকডাউন শিথিল করা শুরু করেছে দেশজুড়ে। তার জেরে এপ্রিল মাসের তুলনায় মে মাসে পেট্রল-ডিজেলের চাহিদা ৭০ শতাংশ বেড়েছে। বর্তমানে ওই দুই জ্বালানির চাহিদা গত ফেব্রুয়ারি মাসের তিন-চতুর্থাংশে পৌঁছেছে। জুন মাসে বিমান পরিষেবা শুরু হওয়ায় বিমান জ্বালানির চাহিদাও প্রচুর বাড়ে। পেট্রলিয়াম ও প্রাকৃতিক গ্যাস মন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এপ্রিল মাসে পেট্রল বিক্রি হয়েছিল ৯,৭৩,০০০ মেট্রিক টন। মে মাসে বিক্রি হয়েছে ১৭,৬৯,০০০ মেট্রিক টন । এপ্রিল মাসের প্রায় দ্বিগুণ! ডিজেল বিক্রিও ৩২,৫০,০০০ মেট্রিক টন থেকে বেড়ে হয়েছে ৫৪,৯৫,০০০ মেট্রিক টন, অর্থাৎ ৭০ শতাংশ বৃদ্ধি! পেট্রল-ডিজেলের চাহিদা বৃদ্ধির সুযোগ নিয়ে রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থাগুলি বর্তমানে রোজ অল্প অল্প করে ওই দুই জ্বালানির দাম বাড়িয়ে চলেছে।

পেট্রল-ডিজেলের চাহিদা বৃদ্ধির সুযোগ নিয়ে রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থাগুলি এখন রোজ অল্প অল্প করে ওই দুই জ্বালানির দাম বাড়াচ্ছে।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV