পল্লবী দত্ত, কলকাতা: আজ মহাষষ্ঠী৷ শাস্ত্র মতে দেবীর বোধন৷ তাতে কী যায় আসে৷ মহালয়ার দিন থেকেই প্রাণের উৎসবে মেতে উঠেছে কলকাতার উত্তর থেকে দক্ষিণ, পূর্ব থেকে পশ্চিম৷ মহানগরের রাজপথ ছাড়িয়ে মফস্বল ও শহরতলির রাস্তায় মানুষের ঢল৷

কলকাতায় দুপুর হতেই যানবাহন এগোতে শুরু করেছে শামুকের গতিতে৷ একাধিক রাস্তা বন্ধ থাকায় যানযটে নাকাল হতে হচ্ছে পুজো পাগল দর্শনার্থীদের৷ স্বস্তি নেই পাতালেও৷ মেট্রোতেও অসম্ভব ভিড়৷ এই ভ্যাপসা গরমে প্রবল ভিড় ঠেলে ঠাকুর দেখতে বেরিয়েছেন তারা৷ তবুও কোথাও খামতি নেই উৎসবে৷

পঞ্চমীর মতো ষষ্ঠীতেও মণ্ডপে মণ্ডপে মানুষের ঢল৷ সকালের চড়া রোদ মাথায় নিয়ে এক মণ্ডপ থেকে আরেক মণ্ডপে ভিড় জমাতে শুরু করেছেন দর্শনাথীরা৷ বাগবাজার থেকে বেহালা, শিয়ালদহ থেকে শ্যামবাজার – কোথাও পা রাখার জায়গা নেই৷ মানুষের জনসমাগমে ট্রাফিক সামলাতে নাজেহাল হতে হয়েছে ভলেন্টিয়ারদের৷ পুলিশের দুশ্চিন্তা বাড়িয়ে দিয়েছে ট্রাফিকই৷ ষষ্ঠীর দিনই এই হাল হলে আগামী চারদিন কি হবে তা ভেবে কপালে চিন্তার ভাঁজ লালবাজারের পুলিশ কর্তাদের৷
       ভিড়ের লড়াইয়ে উত্তর-দক্ষিণ
এদিকে মণ্ডপে ভিড় টানতে যেন এক অদৃশ্য প্রতিযোগিতায় নেমেছে পুজো মণ্ডপগুলি৷ দক্ষিণ কলকাতার একডালিয়া এভারগ্রিন, দেশপ্রিয় পার্ক, ত্রিধারা, সুরুচি সংঘ, বাদামতলা ২৮ সংঘ, সেলিমপুর, চেতলা অগ্রণী সহ সব হেভিওয়েট ও আলোচিত ক্লাবের পুজোয় মহালয়ার দিন থেকেই শুরু হয়েছে প্যান্ডেল ভ্রমণ৷

তবে সহজে জমি ছেড়ে দিতে রাজী নয় উত্তর৷ বাগবাজার, জগৎ মুখার্জী পার্ক, কুমোরটুলি পার্ক, আহিরীটোলা, চালতা বাগান, মহম্মদ আলি পার্ক, কলেজ স্কোয়ার, সন্তোষ মিত্র স্কোয়ার- যেদিকে তাকানো যায় কালো মাথা ছাড়া কিছুই চোখে পড়ছে না৷

ভিড়ের নিরিখে কলকাতার আশেপাশের পুজোগুলোও পিছিয়ে নেই৷ শ্রীভুমি, লেকটাউন, দমদম পার্কের ভিড়ের জেরে ভিআইপি রোডের যান চলাচলে প্রভাব পড়েছে৷ যার জেরে চাপ পড়ছে কলকাতার উপর৷ বিমানযাত্রীদের ভিআইপি রোডের পরিবর্তে নিউটাউন দিয়ে যাতায়াতের পরামর্শ দিয়েছে পুলিশ৷ এতো সবে ছবির ট্রেলার৷ এখনও বাকি গোটা রাত৷