নয়াদিল্লি: নোটবন্দীর পরই নতুন ৫০০ এবং ২০০০টাকার নোট এসেছে বাজারে৷ এখনও অবধি ৫০০টাকার নোট ছাপাতে খরচ হয়েছে প্রায় ৫হাজার কোটি টাকা৷ সোমবার লোকসভায় এই তথ্য জানিয়েছে কেন্দ্র৷

২০১৬র ৮ ডিসেম্বর দেশে বেড়ে চলা দুর্নীতি রুখতে এক কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ কালোটাকার কারবার রুখতে সমস্ত পুরোনো টাকার নোট বাতিল করে দেওয়া হয়৷ এরপরই কেন্দ্রের তরফে নতুন ৫০০ এবং ২০০০টাকার নোট তৈরির প্রস্তাব দেওয়া হয়৷ এই বিষয়ে অর্থমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী পি রাধাকৃষ্ণণ লোকসভায় একটি লিখিত বিবৃতি পেশ করেছেন৷ এই বিবৃতিতে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে সেই বিষয়টি৷ তিনি জানিয়েছেন, চলতি মাসের ৮ডিসেম্বর অবধি এখনও অবধি ১,৬৯৫কোটি ৫০০টাকার নোট ছাপানো হয়েছে৷ এই নোট ছাপাতে খরচ হয়েছে প্রায় ৪,৯৬৮কোটি টাকা৷ একইসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, ১৭৮কোটি ২০০টাকার নোট ছাপাতে খরচ হয়েছে এখনও অবধি প্রায় ৫২৩কোটি টাকা৷

পাশাপাশি ২০০০টাকার নোট ছাপাতে কত কোটি টাকা খরচ হয়েছে৷ সেই বিষয়টিও তিনি তাঁর লিখিত বিবৃতিতে উল্লেখ করেছেন৷ তিনি বলেন, রিজার্ভ ব্যাংক এখনও অবধি ৩৬৫কোটি ২০০০টাকার নোট ছাপিয়েছে৷ যা ছাপাতে খরচ হয়েছে প্রায় ১২৯৪কোটি টাকা৷

এই বিষয়টি নিয়ে অর্থমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী জানিয়েছেন, নোটবন্দীর পরই নতুন ৫০, ২০০, ৫০০ এবং ২০০০ টাকার নোট বাজারে এসেছে৷ কালোবাজারি রুখতেই এই উদ্যোগ নিয়েছিলেন মোদী৷ সমস্ত পুরোনো নোট বাতিল করে নতুন করে ছাপানো হয়েছে এই নোট৷ যার জেরে কয়েক হাজার কোটি টাকা খরচ হয়েছে কেন্দ্রের৷