স্টাফ রিপোর্টার, পটাশপুর : ফের কুমির শাবক উদ্ধার হল পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পটাশপুরে।এই নিয়ে প্রায় এক মাসের মধ্যে পরপর তিন তিনটে কুমির পাওয়া গেলো পূর্ব মেদিনীপুরের নদী তীরবর্তী বিভিন্ন জায়গায়! কয়েকদিন আগে খেজুরিতে ভিন্ন ভিন্ন এলাকায় কয়েক দিনের ব্যবধানে পরপর দুবার ধরা পড়ে।

কয়েক দিনের ব্যাবধানে এবার পটাশপুরের খরিগেরিয়ার কাছে কেলেঘাই নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে মৎসজীবিদের জালে ধরা পড়ে ওই কুমির শাবকটি । প্রথমে এটিকে গোসাপ ভাবে স্থানীয় বাসিন্দারা।

পরে এলাকার বাসিন্দারা বুঝতে পারে এটা গোসাপ বা অন্যকিছু নয়, কুমির শাবক। পূর্ব মেদিনীপুরের কোথাও কুমির প্রকল্প বা কুমির চাষ করা হয় না।

তাহলে কোথা থেকে আসছে এই কুমির শাবকগুলি? এই প্রশ্নের উত্তরে পরিবেশ বন্ধু সোমনাথ দাস অধিকারী এদিন বলেন, লকডাউনে মানুষ ঘরবন্দী হয়ে যাওয়ায় খোলামেলা পরিবেশ পেয়ে কুমির শাবকগুলি সুন্দরবন বা উড়িষ্যা থেকে মিষ্টি জলে চলে এসেছে।

আবার একাংশের কথায়, আমফান ঝড়ের কারনেও কোন গর্ভবতী মা কুমির এই এলাকায় চলে আসে।

তার জেরেই এই এলাকার বিভিন্ন নদী সংলগ্ন এলাকায় দেখা মিলছে কুমির শাবকের।

খবর পেয়ে বন দফতরের কর্মীরা ঘটনাস্থলে যান এবং তাঁরা এই কুমির শাবকটিকে উদ্ধার করে নিয়ে যান ।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।