ভেরোনা: খেতাব ধরে রাখার লড়াইয়ে ফের ধাক্কা খেল জুভেন্তাস৷ ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর গোলেও ব্যবধান ধরে রাখতে পারল না আন্দ্রে পিরলোর দল৷ দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে টানা ন’বারের চ্যাম্পিয়নদের রুখে দিল হেল্লাস ভেরোনা। শনিবার রাতে সিরি-এ টুর্নামেন্টে জুভেন্তাস-ভেরোনা ম্যাচটি ১-১ গোলে শেষ হয়৷

মরশুমে ১৯টি গোলটি করেন রোনাল্ডো৷ তবুও দলকে জেতাতে পারলেন না তিনি৷ ভেরোনার বিরুদ্ধে এই নিয়ে টানা তিন ম্যাচ জয়শূন্য রাইল তুরিনের ক্লাবটি। গত মরশুমে এই মাঠে ১-২ গোলে হেরেছিল জুভেন্তাস। তারপর চলতি মরশুমে প্রথম সাক্ষাতে চ্যাম্পিয়নদের রুখে দিল ভেরোনা। এই ড্রয়ের ফলে খেতাব ধরে রাখার ক্ষেত্রে আরও একধাপ পিছিয়ে গেলেন রোনাল্ডোরা৷

এদিনের পর ২৩ ম্যাচে ১৩টি জয় ও ৭টি ড্র করে ৪৬ পয়েন্ট তিন নম্বরে রয়েছে জুভেন্তাস। আর ৫৩ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে ইন্টার মিলান৷ ৪৯ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে এসি মিলান। ২৪ ম্যাচে ৩৫ পয়েন্ট নিয়ে নবম স্থানে ভেরোনা। রবিবার সান সিরো জিতলে জুভেন্তাসের সঙ্গে ১০ পয়েন্টের সঙ্গে ব্যবধান বাড়িয়ে নেবে ইন্টার মিলান৷

প্রতিপক্ষের মাঠে শনিবার রাতে ম্যাচের দু’টি গোলই হয়েছে দ্বিতীয়ার্ধে। রোনাল্ডোর গোলে জুভেন্তাস এগিয়ে গেলে শেষ দিকে ভেরোনার আন্তোনিন বারাক গোল করে ম্যাচ ড্র করেন৷ গতিময় ফুটবলে শুরু করেছিল আত্মবিশ্বাসী জুভেন্তাস। প্রথম পাঁচ মিনিটে পরপর কয়েকটি আক্রমণ করে প্রতিপক্ষকে চাপে রেখেছিলেন রোনাল্ডোরা। কিন্তু ম্যাচের সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে গতি ও ছন্দ ধরে রাখতে পারেনি জুভেন্তাস। প্রথমার্ধে খুব বেশি সুযোগ তৈরি করতে পারেনি কোনও দলই।

ম্যাচের আট মিনিটে প্রথম সুযোগ পেয়েছিল ভেরোনা৷ কিন্তু দাভিদে ফারাওনির হেড ক্রসবারের ওপর দিয়ে পাঠিয়ে দেন গোলরক্ষক ভয়চেখ স্ট্যাসনি। তারপর পালটা আক্রমণে ফেডরিকো চিয়েসার শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান ভেরোনা গোলরক্ষক। প্রথমার্ধ গোলশূন্যে থাকলেও দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই জুভেন্তাসকে এগিয়ে দেন রোনাল্ডো৷

ম্যাচের ৪৯ মিনিটে পর্তুগিজ তারকার গোলে এগিয়ে যায় জুভেন্তাস। চিয়েসার পাস ডি-বক্সে ফাঁকায় পেয়ে জোরাল শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন জুভেন্তাস ফরোয়ার্ড। তবে ব্যবধান বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি তুরিনের ক্লাবটি৷ ৭৭ মিনিটে ভেরোনাকে সমতায় ফারান বারাক৷ বাঁ-দিক থেকে সতীর্থের বাড়ান ক্রসে লাফিয়ে হেডে গোল করেন তিনি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।