তুরিন: কোপা ইতালিয়া সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগে মিলানের বিরুদ্ধে পেনাল্টি নষ্ট। ফাইনালে পেনাল্টি শুট-আউটে প্রথম চারটি শট না নিতে যাওয়া। সর্বোপরি কোপা ইতালিয়া ফাইনালে নাপোলির কাছে জুভেন্তাসের নিদারুণ পরাজয়। সবমিলিয়ে দিনকয়েক ধরে সমালোচনায় বিদ্ধ হতে হচ্ছিল পর্তুগিজ সুপারস্টারকে। সব দেখেশুনে অপেক্ষায় ছিলেন তিনি। লিগ শুরু হতেই নজির গড়ে ফের জবাব দিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো।

করোনা পরবর্তী সময় সোমবার বলোগানার বিরুদ্ধে ম্যাচ দিয়ে সিরি-এ অভিযান শুরু করল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। আর সেই ম্যাচে প্রথমার্ধে গোল করেই লা লিগায় ফের নজির গড়লেন সিআর সেভেন। এদিন প্রথমার্ধে রোনাল্ডোর পেনাল্টি থেকে করা গোলটি ছিল ইতালির প্রিমিয়র ডিভিশন লিগে তাঁর ৪৩তম গোল। যা পর্তুগিজ ফুটবলার হিসেবে সিরি-এ’তে করা সর্বোচ্চ গোল। এর আগে ১৯৯৪-২০০৬ ফিওরেন্তিনা এবং মিলানের হয়ে রুই কোস্তা সিরি-এ’তে সর্বমোট ৪২টি গোল করেছিলেন।

বলোগানার বিরুদ্ধে এদিন প্রথমার্ধে রোনাল্ডো এবং পাওলো দিবালার জোড়া গোলে জয় নিশ্চিত হয়ে যায় ‘ওল্ড লেডি’র। ২০ মিনিটে কর্নার প্রতিহত করতে গিয়ে জুভে ডিফেন্ডার দে লিৎ’কে নিজেদের বক্সের মধ্যে অবৈধভাবে ফেলে দেন বলোগানার এক ডিফেন্ডার। ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির সাহায্য নিয়ে জুভেন্তাসকে পেনাল্টি দেন রেফারি। ২৩ মিনিটে স্পটকিক থেকে নিশানায় অব্যর্থ থেকে দলকে এগিয়ে দেন ক্রিশ্চিয়ানো, একইসঙ্গে নোটবুকে আরও একটি রেকর্ড তুলে ফেলেন নিজের নামে।

৩৬ মিনিটে তুরিনের ক্লাবটির হয়ে ইনসিওরেন্স গোল তুলে নেন পাওলো দিবালা। বক্সের বাইরে থেকে আর্জেন্তাইন স্ট্রাইকারের বাঁ-পায়ের দূরপাল্লার শট বিপক্ষ গোলরক্ষককে কোনওরকম সুযোগ না দিয়েই খুঁজে নেয় গোলের ঠিকানা। লকডাউনের পর মাঠে ফিরে দিবালারও এটি প্রথম গোল। নাপোলির বিরুদ্ধে কোপা ইতালিয়ার ফাইনালে পেনাল্টি নষ্ট করেছিলেন তিনি। উল্লেখ্য, জুভেন্তাসের তিন ফুটবলারের মধ্যে দিবালা একজন, যিনি নোভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন।

দ্বিতীয়ার্ধে দূরপাল্লার বিক্ষিপ্ত কিছু শটে ব্যবধান বাড়ানোর চেষ্টা করেন জুভেন্তাস ফুটবলাররা। যার মধ্যে বার্নানদোস্কির একটি বাঁ-পায়ের দুরন্ত শট পোস্টে লেগে ফিরে আসে। শেষদিকে আবার লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন জুভেন্তাস ডিফেন্ডার দানিলো। যদিও তা দলের তিন পয়েন্টের পথে বাধা হয়ে ওঠেনি কোনওভাবেই। এই জয়ের ফলে ২৭ ম্যাচে ৬৬ পয়েন্ট নিয়ে লিগ শীর্ষে নিজেদের অবস্থান বজায় রাখল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। যদিও দ্বিতীয়স্থানে থাকা ল্যাজিও খুব পিছিয়ে নেই। ২৬ ম্যাচে ৬২ পয়েন্ট নিয়ে জুভেন্তাসের কাঁধে নিঃশ্বাস ফেলছে তারা।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ