লিসবন: আগামী বছর সুইডেনে অনুষ্ঠিত হবে মহিলাদের উয়েফা অনূর্ধ্ব-১৭ চ্যাম্পিয়নশিপ। এর বাছাই পর্বে দারুণ খেলছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর দেশ। খেলায় খুশি হয়ে পর্তুগালের অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা ফুটবলারদের জন্য নিজের বুট উপহার দিলেন সিআর সেভেন৷

উয়েফা অনূর্ধ্ব-১৭ চ্যাম্পিয়নশিপের কোয়ালিফায়িং রাউন্ডের প্রথম ম্যাচে ইসরায়েলকে ৪-১ হারিয়েছে পর্তুগাল। পরের ম্যাচে লাটভিয়াকে ৪-০ উড়িয়ে দিয়েছে রোনাল্ডোর দেশের মেয়েরা। এর ফলে মূলপর্বে জায়গা করে নেয় পর্তুগাল৷ সোমবার পর্তুগালের প্রতিপক্ষ ছিল নেদারল্যান্ডস।

নেদারল্যান্ডসের মুখোমুখি হওয়ার আগেই অনূর্ধ্ব-১৭ পর্তুগাল মহিলা দলের শিবিরে পৌঁছে যায় পুরস্কার-সহ রোনাল্ডোর প্রেরণামূলক চিঠি। জাতীয় অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলাদের পারফরম্যান্সে খুশি হয়ে দলের প্রত্যেককে এক জোড়া করে বুট উপহার দিয়েছেন সিআর সেভেন৷ যে ব্র্যান্ডের বুট পরে খেলেন রোনাল্ডো, সেই বুট অর্থাৎ ‘মারকিউরিয়াল ড্রিম স্পিড’ব্র্যান্ডের বুট উপহার হিসেবে দিয়েছেন পর্তুগিজ তারকা ফুটবলার৷

পাশাপাশি চিঠিতে রোনাল্ডো লিখেছেন, ‘মারকিউরিয়াল ড্রিম স্পিড ব্র্যান্ডের বুট তোমাদের জন্য পাঠালাম। এই আশায় যে, এই বুট পায়ে তোমরা হয়তো আমার মতো নিজেদের স্বপ্নকে বাস্তবে পরিণত করতে পারবে। আমি যখন ছোট ছিলাম তখন আমি একটা একটা স্বপ্নের পিছনে রোজ পাগলের মতো ছুটতাম। তবে এটা সেই স্বপ্ন নয়, যা তোমরা রাতে ঘুমের মধ্যে দেখো। এটা সেই স্বপ্ন, যা তোমরা বাস্তবে পরিণত করতে চাও।’

অভাবের সংসারেও ছোট থেকেই বিশ্বের সেরা ফুটবলার হওয়ার স্বপ্ন দেখতেন রোনাল্ডো। তিনি বলেন, ‘স্বপ্ন সফল করার জন্য আমি সারা জীবন উৎসর্গ করেছি জিমে, খেলার মাঠে ও অনুশীলনে। স্বপ্ন সফল করার জন্য যা যা করার দরকার, আমি সেগুলোর প্রত্যেকটি করে গিয়েছি। ফাঁকি দিইনি। প্রত্যেকের জীবনে একটা স্বপ্ন থাকা গুরুত্বপূর্ণ। আর কঠোর পরিশ্রম করে সেই স্বপ্নকে সফল করা যায়।’এক সময় বার্গারের দোকানে বেঁচে যাওয়া খাবার চেয়ে খেয়ে রাত কাটিয়েছেন আজকের বিশ্বের অন্যতম ধনী এই ফুটবলার৷

বিশ্বসেরা ফুটবলার চিঠিতে আরও লিখেছেন, ‘আমি স্বপ্নকে আত্মস্থ করেছিলাম। আশা করি, তোমরাও স্বপ্নকে সত্যি করে তুলতে পারবে। যদি আমি পারি, তা হলে তোমরাও পারবে বলে আমার বিশ্বাস। উয়েফা অনূর্ধ্ব-১৭ চ্যাম্পিয়নশিপের পরের রাউন্ডে যাওয়ার জন্য তোমাদের অভিনন্দন। আগামী ম্যাচেও জয় ছিনিয়ে আনতেই হবে৷ তার জন্য শুভেচ্ছা রইল। নতুন বুট পায়ে খেলা উপভোগ করো।’