জেরুজালেম: ফুটবল কেরিয়ারে জিতেছেন অসংখ্য গোল্ডেন বুট। কিন্তু পাশাপাশি তিনি যে ‘আ ম্যান উইথ গোল্ডেন হার্ট’ তার প্রমাণও একাধিকবার দিয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। যুদ্ধবিধ্বস্ত প্যালেস্তাইনের প্রতি বরাবরই বাড়তি আবেগ পর্তুগিজ সুপারস্টারের। তাই বিশ্বজুড়ে পবিত্র রমজান মাস চলাকালীন প্যালেস্তাইনের মানুষের জন্য ১.৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার অর্থসাহায্য করলেন জুভেন্তাস স্ট্রাইকার। ভারতীয় মুদ্রায় যা ১০ কোটি টাকারও বেশি।

দীর্ঘ ১২ বছর ধরে স্থল, জল ও বায়ুপথে ইজরায়েলের হাতে বন্দি প্যালেস্তাইন। গাজা ভূখন্ডে ইজরায়েলের কর্তৃত্ব কায়েমের চেষ্টা মৃত্যুপুরীতে পরিণত করেছে প্যালেস্তাইনকে। গুলি-বারুদের গন্ধে যুদ্ধবিধ্বস্ত পশ্চিম এশিয়ার দেশটিতে জনজীবন আক্ষরিক অর্থে বিপর্যস্ত। এরইমধ্যে নিয়ম মেনে রোজা পালন সেদেশের মানুষের কাছে নেহাতই বাতুলতা। ঠিক এমন সময় পবিত্র রমজান মাসে ফের একবার প্যালেস্তাইনের মানুষের প্রতি তাঁর শ্রদ্ধা ও সহানুভুতি জ্ঞাপন করলেন সিআর সেভেন। সেদেশের মানুষকে ইফতার পালনের জন্য দান করলেন দেড় মিলিয়ন ডলার।

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপের আগে বিশ্বযুদ্ধের স্মৃতিসৌধ ঘুরে দেখল বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা

তবে এই প্রথম নয়। এর আগেও যুদ্ধবিধ্বস্ত প্যালেস্তাইনের জন্য কেঁদেছে রোনাল্ডোর হৃদয়। ২০১২ ইজরায়েলের ‘পিলার অফ ডিফেন্স’ অপারেশনের পর গাজার শিশুদের পড়াশুনার সাহায্যার্থে রোনাল্ডো নিলামে তুলেছিলেন তাঁর ইউরোপের বর্ষসেরা স্ট্রাইকার সম্মান অর্থাৎ গোল্ডেন বুট। এরপর ২০১৩ বিশ্বকাপ কোয়ালিফায়ারে পর্তুগাল-ইজরায়েল ম্যাচ শেষে প্যালেস্তাইনের সমর্থনে বিপক্ষ ফুটবলারের সঙ্গে জার্সি বিনিময় করতে অস্বীকার করেন রোনাল্ডো।

আরও পড়ুন: রিলিজ হল বিশ্বকাপের থিম সং ‘স্ট্যান্ড বাই’

এরপর ইজরায়েলী আক্রমণে স্বজন হারানো বছর পাঁচেকের শিশু আহমেদ দাউবাসার সঙ্গে ২০১৬ রিয়াল মাদ্রিদ ট্রেনিং ক্যাম্পে সাক্ষাৎ করেন রোনাল্ডো। তাঁর সঙ্গে চুটিয়ে ফটোসেশনের পর আহমেদের হাতে ক্লাবের তরফ থেকে উপহার দেওয়া জার্সি তুলে দেন পর্তুগিজ ফুটবলার। এছাড়াও নানা সময় নানাভাবে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির পাশে দাঁড়িয়েছেন পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী এই তারকা ফুটবলার।

তালিকায় নবতম সংযোজন এই ঘটনা। প্যালেস্তাইনের বিশ্বস্ত সংবাদমাধ্যম সূত্রে পবিত্র রমজানে রোনাল্ডোর এই অর্থসাহায্যের খবর ছড়িয়ে পড়ে বিশ্বজুড়ে। স্বভাবতই পর্তুগিজ ফুটবলারকে প্রশংসায় ভরিয়ে দেন তাঁর অনুরাগীরা।