সিডনি: আন্তর্জাতিক নারী দিবসে মহিলা ক্রিকেটারদের বিশেষ সম্মান দেওয়ার কথা ঘোষণা করল ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া৷ সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে বসছে দেশের প্রথম মহিলা ক্রিকেটারের ভাষ্কর্য৷ সোমবার International Women’s Day-তে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার তরফে এমনটাই জানানো হয়৷

এর দেশে ৭৩ জন পুরুষ ক্রিকেটারের মূর্তি বা ভাষ্কর্য স্থাপিত হলেও সোমবারই প্রথম মহিলা ক্রিকেটারের মূর্তি স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিলে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট বোর্ড৷ আইসিসি-র তরফেও এদিন মহিলা ক্রিকেটের ব্যপ্তির কথা জানানো হয়৷ এদিনই ইনস্টাগ্রামে নিজের অ্যাকাউন্টে নারী দিবস উপলক্ষ্যে স্ত্রী অনুষ্কা শর্মা ও মেয়ে ভামিকার ছবি পোস্ট করে বিশেষ সম্মান জানান ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি৷

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার তরফে সিইও নিক হোগলে এক বিবৃতে জানান, ‘এ বছর আন্তর্জাতিক নারী দিবসে আমাদের থিম হল ‘choose to challenge’৷ খেলাধুলোয় আমরা সমানধিকার আনতে চাই৷ আইসিসি মহিলা টি-২০ বিশ্বকাপ ফাইনালে এমসিজি-তে রেকর্ড সংখ্যক ৮৬,১৭৪ দর্শক মাঠে উপস্থিত ছিলেন৷ আজকের দিনে আমাদের সামনে কঠিন চ্যালেঞ্জ৷ বিশেষ করে প্যানডেমিকের আগেই আমরা ক্রিকেটে সাম্য আনার চেষ্টা শুরু করেছি৷ আজকের দিনটা আমাদের কাছে এক ঐতিহাসিক মুর্হূত৷ নিউ সাউথ ওয়েলস সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে প্রথম মহিলা ক্রিকেটারের ভাষ্কর্য স্থাপনের জন্য দায়বদ্ধ৷’ ভাষ্কর্য করবেন পুরস্কারজয়ী শিল্পি ভিনসেন্ট ফ্যানতাওজো৷

নারী দিবসে বাইশ গজে বিশেষ সম্মান

* প্রথম মহিলা ক্রিকেটারের মূর্তি বসছে অস্ট্রেলিয়ায়

* সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে এই ভাষ্কর্য স্থাপনের কথা জানিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া

* দেশে ৭৩ জন পুরুষ ক্রিকেটারের মূর্তি রয়েছে৷

* আন্তর্জাতিক নারী দিবসে মহিলা ক্রিকেটে ব্যপ্তি

* ২০২৩ পর্যন্ত মহিলা ক্রিকেট ক্যালেন্ডার ঘোষণা করেছে আইসিসি

* ২০২৭ হবে মহিলা টি-২০ চ্যাম্পিয়ন্স কাপ

* ২০২৯ ওয়ান ডে বিশ্বকাপ হবে ১০ দলের

এদিনই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের তরফে মহিলা ক্রিকেটের বাড়ানোর কথা বলা হয়৷ ২০২০ মহিলা টি-২০ বিশ্বকাপের সাফল্যের কথা ভেবে আন্তর্জাতিক নারী দিবসে আইসিসি-র তরফে ২০২৩ পর্যন্ত ক্রিকেট ইভেন্টের ঘোষণা করা হয়৷ ২০২৬ সালে মহিলা টি-২০ বিশ্বকাপ হবে ১০ দলের৷ ২০২৯ সালে মহিলা ওয়ান ডে বিশ্বকাপ হবে ১০ টিমের৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।