স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: খেটে খাওয়া, দিনমজুর মেহনতি মানুষের হয়ে কথা বলা সিপিএম এখনও দরিদ্রের কাছ থেকে ন্যূনতম অর্থ সাহায্যের উপরই জোর দেয়। এখনও পার্টি ফান্ড ভরাতে কৌটো নাচিয়ে চাঁদা তোলে তারা৷ অথচ পঞ্চম পর্বে বাংলায় সিপিএমের দু-দুজন কোটিপতি প্রার্থী রয়েছেন৷উল্লেখ্য, চতুর্থ দফাতেও বামেদের দুজন কোটিপতি প্রার্থী ছিলেন৷

ওয়েস্ট বেঙ্গল ইলেকশন ওয়াচ নামে একটি সংগঠন প্রার্থীদের আয় সম্পর্কে যে-পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে, তাতে দেখা যাচ্ছে,উলুবেড়িয়া কেন্দ্রের মাকসুদা খাতুন এবং আরামবাগের শক্তিমোহন মালিক। মাকসুদার সম্পত্তির পরিমাণ এক কোটি ২৫ লক্ষ টাকার কাছাকাছি। শক্তিমোহনের প্রায় এক কোটি চার লক্ষ।

পঞ্চম দফার ভোটে পশ্চিমবঙ্গে সাতটি লোকসভা কেন্দ্রে নির্বাচন হতে চলেছে। নির্বাচন কমিশনে দেওয়া হলফনামায় দেখা যাচ্ছে, সাত আসনেই তৃণমূল প্রার্থীরা কোটিপতি এবং এ ক্ষেত্রে সব দলের প্রার্থীকেই পিছনে ফেলে দিয়েছেন তৃণমূলের কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়।তাঁর ঘোষিত সম্পত্তির পরিমান ১৭ কোটি ৬০ লক্ষ টাকা।২০১৪ সালের পরে পাঁচ বছরে তাঁর সম্পত্তির পরিমাণ বৃদ্ধির হার ৯৮ শতাংশের কাছাকাছি। দ্বিতীয় স্থানে আছেন ব্যারাকপুরের তৃণমূল প্রার্থী দীনেশ ত্রিবেদী। তাঁর ঘোষিত সম্পত্তির পরিমান ৬ কোটি ৬২ লক্ষ টাকা।

কোটিপতির তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছেন তৃণমূলের আরও এক ধনী প্রার্থী হুগলির রত্না দে। তাঁর সম্পত্তির পরিমান ৩ কোটি ৪৭ লক্ষ টাকার কাছাকাছি।বিজেপির সব থেকে ধনী প্রার্থী হলেন লকেট চট্টোপাধ্যায়। অভিনেত্রী তথা নেত্রীর সম্পত্তির পরিমান ৩ কোটি ৫৬ লক্ষ টাকা।