স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: নন্দীগ্রাম থানার এক সিনিয়ার অফিসার এবং হলদিয়ার প্রাক্তন ডিএসপির বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনকে ব্যবস্থা নিতে বলল সিপিএম৷ সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য রবীন দেব শনিবার রাজ্যের মুখ্য নির্বাচন অধিকারি আরিফ আফতাব এবং রাজ্যের বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবেকে ওই দুই পুলিশ অফিসারের বিষয়ে অপত্তির কথা জানিয়েছেন৷ সাংবাদিকদের রবীনবাবু বলেছেন, এই দুই অফিসার মেদিলীপুরে উপস্থিত থাকলে আবাধ ওবং সুস্থ নির্বাচন হবে না৷ নির্বাচন কমিশনের ব্যবস্থা নেওয়া উচিত৷

রবিবার রাজ্যে ৮টি লোকসভা কেন্দ্রে নির্বাচন হবে৷ তমলুক, কাঁথি. ঘাটাল, ঝাড়গ্রাম, মেদিনীপুর, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া এবং বিষ্ণুপুরে নির্বাচন হবে৷ ওই নির্বাচনের বেশ কিছু জায়গায় শাসকদল নিজের প্রভাব খাটিয়ে ভোট করানোর চেষ্টা করবে বলে দাবি করেছেন রবীন৷ রবীনবাবুর মতে ওই আটটি কেন্দ্রে বিশেষভাবে নজর দিতে হবে৷ সেই কথা নির্বাচন কমিশন নিয়োজিত বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষককে জানানো হয়েছে৷ এঅ অলাকাগুলিতে এমন কিছু সরকরি অফিসার রয়েছে যারা শাসকদলের পক্ষে ভোট করাতে বদ্ধ পরিকর৷

সরকরি অফিসারদের মধ্যে নন্দীগ্রাম থানার ওই অফিসার এবং হলদিয়ার ওই প্রাক্তন ডিএসপি’র কথা সিপিএম বিশেষভাবে বলেছে৷ রবীনবাবুর অভিযোগ, তম্ময় মুখোপাধ্যায়কে বদলি করে সিআইডিতে পাঠানো হয়েছিল৷ কিন্তু তিনি আবার কীভাবে ফিরে এলেন সেটাই প্রশ্ন৷ তাকে ভোট লুঠ করার জন্য আনা হয়েছে৷ রবীনের আরও অভিযোগ, স্থানীয় কাউন্সিলাররা পুলিশ এবং ভোট লুঠেরারা ৯ মে বৈঠক করেছেন৷ উদ্দেশ্য কীভাবে ভোট লুঠ করতে হবে রবিবার৷

রবীন বলেছেন, বহিরাগতরা পশ্চিম বর্ধমান থেকে বাঁকুড়ায় ঢুকছে৷ কেতুগ্রাম থেকে আসছে পূর্ব মেদিনীপুরে৷ মুর্শিদাবাদের দায়িত্বে রয়েছেন রাজ্যের এক মন্ত্রী৷ তিনি ওই রাজ্য থেকে লোক আনছেন৷ কয়েকজন এসপি রয়েছেন যারা শাসকদলের হয়ে কাজ করছেন৷ সিইও বলছে ১০০ শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকবে৷ পুলিশ পর্যবেক্ষক ও একই কথা বলছেন৷ কিন্তু জেলার এসপি বলছে ৪৫ শতাংশের বেশি বাহিনী দেওয়া যাবে না৷

বাংলায় প্রথম পাঁচটি দফার নির্বাচন অশান্তিবিহীন ছিল না৷ উত্তর থেকে দক্ষিণে ২৫টি কেন্দ্রে বিভিন্ন জায়গায় অশান্তি হয়েছে৷ মুর্শিদাবাদে ভোটের দিন মৃত্যু হয়েছে কংগ্রেস কর্মীর৷ অবাধে ভোট লুঠের ঘটনা ঘটেছে৷ রাস্তা অবরোধ থেকে ইভিএম ভাঙার ঘটনাও দেখেছে রাজ্য৷ এই সব কিছুর পরেও রাজ্যে ভোটের শতাংশের হার যথেষটই বেশি৷ গড়ে ৭৫ থেকে ৮০ শাংশ ভোট পড়েছে প্রায় প্রতিটি কেন্দ্রেই৷