নয়াদিল্লি:এনআরসি’র বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই রুখে দাঁড়াতে দেখা গিয়েছে, পশ্চিমবঙ্গ কেরল সহ ১২টি অ-বিজাপি রাজ্য। এদিকে মঙ্গলবার এক প্রেস বিবৃতি দিয়ে সিপিআই(এম) পলিট ব্যুরোর পক্ষ থেকে আবেদন করা হয়েছে, যদি বিরোধী শাসিত রাজ্যগুলির সরকার সত্যিই এনআরসি বিরোধী হয়, তা হলে অবিলম্বে যেন সরকারী নির্দেশিকা জারি করে এনপিআর সংক্রান্ত সমস্ত কাজ বন্ধ করে। ওই প্রেস বিবৃতিতে পাশাপাশি স্পষ্ট ভাষায় দাবি করা হয়েছে, এনআরসি প্রক্রিয়ার ভিত্তিই হল এই এনপিআর। অর্থাৎ এনআরসি রদ করতে হলে অবিলম্বে এনপিআর সংক্রান্ত সমস্ত কাজ বন্ধ করতে হবে।

যদিও কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভা মঙ্গলবার সায় দিয়েছে গোটা দেশে এনপিআর চালুর ব্যাপারে৷ মন্ত্রীসভার সম্মতিতে এবার দেশে এনপিআর সংক্রান্ত তালিকা প্রস্তুত করা হবে। এর জন্য মোট খরচ ৮৫০০ কোটি টাকা ধার্য করা হয়েছে। এনপিআর এর প্রশ্নাবলির মাধ্যমে মা- বাবার জন্মস্থান সংক্রান্ত তথ্য জানতে চাওয়া হবে, যা পক্ষান্তরে এনআরসি’র রাস্তাই খুলে দেবে বলে আশংকা করা হচ্ছে ৷

সিপিআই(এম) ওই প্রেস বিবৃতিতে দাবি করেছে, ২০১৪ সালের ২৩ জুলাই রাজ্যসভায় এক বিবৃতির মাধ্যমে মোদী সরকার জানিয়েছিল যে এনপিআর এর মাধ্যমে সংগৃহীত তথ্যের ওপর ভিত্তি করেই সারা দেশে এনআরসি বা নাগরিক পঞ্জি তৈরি করতে চায় তারা। ইতিমধ্যেই কেরল এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন যে তাঁদের রাজ্যে এনপিআর সংক্রান্ত কোনও কাজ করা হবে না।