কলকাতা: করোনা সংকট প্রাত্যহিক জীবনের অনেক অভ্যেস বদলে দিচ্ছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে কর্পোরেট জগত অনলাইনে বৈঠক করছে। সরকারি বৈঠকেও হচ্ছে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে। এবার দেখা গেল সিপিএমকে যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে সেই পথে হাঁটতে । পলিটব্যুরোর বৈঠক হল ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে।

মঙ্গলবার পলিটব্যুরোর বৈঠকের সময় দলের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি ছিলেন দিল্লিতে দলীয় কেন্দ্রীয় কমিটির দফতরে। কলকাতা থেকে অংশ নেন বিমান বসু, সূর্যকান্ত মিশ্র এবং মহম্মদ সেলিম। আগরতলা থেকে মানিক সরকার। কানপুরে সুভাষিনী আলি, দিল্লিতে বৃন্দা কারাত।কেরালা থেকে পিনারাই বিজয়ন, এস রামচন্দ্রন পিল্লাই, এম এ বেবি প্রমুখরা। এছাড়া পলিটব্যুরোর অন্যান্য সদস্যরা দিল্লির নানা প্রান্ত থেকে অনলাইনে বৈঠকে যোগ দেন বলে জানা গিয়েছে।

রাজীব গান্ধীর জমানায় কম্পিউটারের বিরোধিতা করেছিল এই সিপিএম। কারণ বামেদের আশঙ্কা ছিল কম্পিউটার এলে চাকরি সংকোচন হবে। কিন্তু ঘটনাচক্রে দেখা গিয়েছে কম্পিউটারকে ভিত্তি করে ভারতবর্ষের মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ অনেক বেড়ে গিয়েছে। এদেশের মানুষের অন্যান্যদের তুলনায় ইংরেজি জানা এবং সহজাত গাণিতিক মেধা থাকায় বিশ্বজুড়ে তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে কাজের জন্য ভারতের মানুষ ছড়িয়ে পড়তে পেরেছে।

তবে এটা ঘটনা একদা কম্পিউটার বিরোধী সিপিএম যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে পলিটব্যুরোর বৈঠক এমনভাবে অনলাইনে করাতে হতবাক বিভিন্ন মহল। এমন ঘটনা দেখে রাজনৈতিক মহলের একাংশের অভিমত, বামদলের অভ্যন্তরে এক বিপ্লব ঘটে গিয়েছে। এদিনের বৈঠকে করোনা সংকট জনিত ‌ পরিস্থিতি, দেশের বর্তমান রাজনৈতিক এবং অর্থনৈতিক অবস্থা নিয়ে আলোচনা হয়। বুধবার বিকেলে এই বৈঠকের ব্যাপারে সাংবাদিক সম্মেলন করার কথা সীতারাম ইয়েচুরির।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প