স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: সকাল থেকেই বারবার অভিযোগ তোলা হচ্ছিল স্বাভাবিক ভোটদান প্রক্রিয়ায় বাধা দেওয়া নিয়ে৷ অভিযোগ অবশ্যই তুলছিল বিরোধীরা৷ আর যথারীতি সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছে শাসকপক্ষ৷ আর এরই মধ্যে সিপিএম প্রার্থী গার্গী চট্টোপাধ্যায়কে ঘিরে বিক্ষোভের ছবিও ধরা পড়ল নোয়াপাড়ায়৷

আরও পড়ুন: বিরোধীদের অভিযোগ উড়িয়ে উৎসবের মেজাজে ভোট সুনীল-সাজদার

সোমবার সকালে ভোটপ্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পর থেকেই নানা অভিযোগ উঠছিল৷ অভিযোগের সেই উত্তপ্ত পরিস্থিতির মধ্যে সকালে সকালে ভোট দিতে যান সিপিএমের প্রার্থী৷ ভোট দেওয়ার পর পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে শুরু করেন তিনি৷ তাতেই তাঁর চোখে নাকি ধরা পড়ে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস সন্ত্রাস করছে৷ তিনি দাবি করেন, তাঁদের এজেন্টদের বের করে দেওয়া হচ্ছে বুথ থেকে৷

প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, বুথের বাইরে দাঁড়িয়ে এ নিয়ে যখন ক্ষোভপ্রকাশ করছেন গার্গী চট্টোপাধ্যায়৷ তখনই তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ শুরু হয়৷ অভিযোগ, বুথের বাইরে থাকা তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা বিক্ষোভ করেন৷ সিপিএমের অভিযোগ, এদিন সকাল থেকে কার্যত ভোট হচ্ছে না৷ তৃণমূলের ভয়ে সাধারণ মানুষ বাড়ি ফিরে গিয়েছেন৷ যাঁরা সাহস করে বুথের বাইরে ভোটের লাইনে দাঁড়াচ্ছেন, তাঁদের রীতিমতো হুমকি দেওয়া হচ্ছে৷

আরও পড়ুন: দেখা নেই প্রার্থী সন্দীপের, হতাশ নোয়াপাড়ায় গেরুয়া শিবির

যদিও শাসক দলের দাবি, উৎসবের মেজাজে ভোট হচ্ছে৷ কোথাও কোনও গোলমাল হয়নি৷ বিরোধীদের সঙ্গে মানুষ নেই৷ তাই তারা মিথ্যা অভিযোগ করছেন বলে শাসক দলের দাবি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।