সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়: সুকুমার রায় লিখেছিলেন ‘গোঁফ গিয়েছে চুরি’। পশ্চিমবঙ্গে নতুন তরজা ‘গান গিয়েছে চুরি’। বামের গান রাম চুরি করেছে অভিযোগ ছিল বাম সংগঠনের। এতে আবার বাম রাম গাঁটবন্ধনের যোগ পেয়েছিল তৃণমূল। বন্ধন ‘ছেদ’ করে পালটা গান ধরল বাম ছাত্র সংগঠন এস.এফ.আই।

বাম রাম এক , এমন অভিযোগ প্রায়ই আসে তৃণমূলের পক্ষ থেকে। সম্প্রতি নেটিজেনদের অভিযোগ ছিল, বাবুল সুপ্রিয় বামেদের স্লোগান থেকে কথা চুরি করে বিজেপির নির্বাচনী প্রচারের গান বানিয়েছেন। এই অভিযোগে তৃণমূল আরও জোর দিয়ে অভিযোগ তুলেছিল বাম-রাম এক, তাই তাদের স্লোগান এবং গানের মধ্যে মিল রয়েছে। নতুন স্লোগানে বিজেপি এবং নরেন্দ্র মোদীকে বিদ্ধ করে তৃণমূলকে বাম – রাম সংযোগের যেন জবাব দিতে চাইল মেদিনীপুরের বাম ছাত্র সংগঠন এস.এফ.আই। নতুন গানে তারা বলেছে ,

‘কালা ধনের কলে, নোট বন্দির কলে, একশো মানুষ মরে,
তাহলে কাকা লাভ কার ? চুরি করেছে চৌকিদার।

কানা মোদী কাকা, রাফাল নথি ফাঁকা
তাহলে কাকা লাভ কার ? চুরি করেছে চৌকিদার

চৌকিদার কি ঘুমিয়েছিল ? নীরব ললিত পালিয়ে গেল।
তাহলে কাকা লাভ কার ? চুরি করেছে চৌকিদার

ভোটের আগে পনেরো লাখ, এখন কেন জাতপাত ?
তাহলে কাকা লাভ কার ? চুরি করেছে চৌকিদার

মূর্খ মন্ত্রী দিচ্ছে জ্ঞান, হাঁসও দিচ্ছে অক্সিজেন ,
তাহলে কাকা লাভ কার ? চুরি করেছে চৌকিদার

বেকার কৃষক শ্রমিক মরে, চায়ে ওয়ালা বিদেশ ঘোরে
তাহলে কাকা লাভ কার ? চুরি করেছে চৌকিদার

সুদিনের টাকায় কাকা, গ্যাসের দাম হাজার টাকা
তাহলে কাকা লাভ কার ? চুরি করেছে চৌকিদার’

২১ মার্চ , বাবুল সুপ্রিয়র বিরুদ্ধে স্লোগান চুরির অভিযোগ তোলে বামপন্থী সংগঠন ডিওয়াইএফআই। বাম সংগঠনের নেত্রী রিয়া মাইতির অভিযোগ ছিল, ‘রাজ্যে যখন তৃণমূল ২০১১ সালে প্রথম ক্ষমতায় আসে তখন তারা বামপন্থিদের স্লোগান চুরি করে এসেছিল। বিজেপিও এখন ঠিক একই কাজ করছে। বামপন্থি ছাত্র-যুবরা সবসময় এগিয়ে থাকে। তাঁদের স্লোগান এতটাই ভালো বা বিখ্যাত সেজন্য বাবুল সুপ্রিয় চুরি করার লোভ সামলাতে পারেনি!’

রিয়া মাইতি কটাক্ষ করে বলেন, ‘‘চৌকিদার’ যদি চোর হয় তাহলে তাঁর চ্যালাচামুণ্ডারা কী চোর হবে না?’ বাবুল সুপ্রিয়র পাল্টা সাফাই ছিল, ‘সিপিএম বা এসএফআই বলছে তাদের অনেক স্লোগান আমি চুরি করেছি। আমি বলছি ভাই চুরি করিনি, সজ্ঞানেই নিয়েছি। আমরা সকলেই পশ্চিমবঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূলের অরাজকতা উৎখাত করতে চাই। সেটাকে বন্ধ করতে চাইছি। সেজন্য মানুষ যে স্লোগানগুলো চারদিকে তুলছে যেগুলো আমার কানে আসছে সেগুলো নিয়ে আমি গানটা বানিয়েছি।’

এতে বাম-রাম যোগের গন্ধ পেয়েছিল তৃণমূল। তবে ইলেকশন কমিশনের কাছে তাঁদের অভিযোগটি ছিল বিজেপির বিরুদ্ধে। তৃণমূল কংগ্রেস ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অসম্মান ও মর্যাদাহানি করা হয়েছে বলে তাদের অভিযোগ ছিল। তৃণমূলের পক্ষে আসানসোল দক্ষিণ থানায় অভিযোগ জানানো হয়। নির্বাচন কমিশনকেও বিষয়টি জানানো হয়। এরপরেই নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকেও বাবুল সুপ্রিয়কে শোকজ করে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে জবাব দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।

গান বাণে বিদ্ধ বাবুল, প্রশ্ন ‘তাহলে কাকা লাভ কার’

গান বাণে বিদ্ধ বাবুল, প্রশ্ন ‘তাহলে কাকা লাভ কার’https://www.kolkata24x7.com/cpim-new-slogan-arise-new-quistion-on-song-controversy.html

Kolkata24x7 यांनी वर पोस्ट केले रविवार, २४ मार्च, २०१९