কলকাতা: আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যদি মিথ্যা কথা বলে , অসত্য বলে, তবে ভারত সরকারকে সত্যিটা প্রকাশ করা উচিত বলে মনে করে সিপিএম। সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি মঙ্গলবার বলেন, “(নরেন্দ্র) মোদী ঠিক না, (ডোনাল্ড) ট্রাম্প ঠিক … (জানা যাচ্ছে না)। যদি ট্রাম্প মিথ্যা কথা বলছেন বা অসত্য বলছেন, তবে ভারত সরকারের তা পরিষ্কার করে দেওয়া উচিত।”

সীতারামের আরও বক্তব্য, কাশ্মীর বিতর্ক ভারত-পাকিস্তানের দ্বিপাক্ষিক বিষয়। তৃতীয় পক্ষের মধ্যস্থতার প্রয়োজন নেই। শিমলা চুক্তি এবং লাহোর ঘোষণা মেনে চলতে হবে। ঘটনার সূত্রপাত সোমবার হোয়াইট হাউসে। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে বলেন, ভারতের সঙ্গে কাশ্মীর বিষয়ে আলোচনা শুরু করতে হবে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, মোদী মধ্যস্থতার বিষয়ে তাঁকে অনুরোধ করেছেন। তিনি তা করতে পারলে খুশি হবেন। সারা পৃথিবীতেই এই খবর দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়ে।

ভারতের বিদেশ দফতরের মুখপাত্র রাভিস কুমার বিবৃতি দিয়ে জানান, প্রধানমন্ত্রী মোদীর সঙ্গে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এই ধরণের কোনও কথা হয়নি। বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর সংসদে দাঁড়িয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রী মোদী এবং আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এই ধরণের কোনও কথা হয়নি। চলতি বিতর্ক নিয়ে আমেরিকা বিরোধী সিপিএমের বক্তব্য পরিষ্কার, ট্রাম্প মিথ্যা কথা বললে তা পরিষ্কার জানিয়ে দিক ভারত।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.