সুভাষ বৈদ্য, শিলং: তাপমাত্রা ১৩ ডিগ্রি৷ ঠান্ডা জায়গায় ঠান্ডা লড়াই৷ তবে সেই লড়াইয়ের উত্তাপ ছড়িয়ে পড়েছে সারা দেশে৷ সবার নজর এখন মেঘালয়ের শিলং৷ যেখানে কলকাতা পুলিশ কমিশনার কে জিজ্ঞাসাবাদ করছে সিবিআই৷ ১২ জন সিবিআই দাপুটে কর্তার মুখোমুখি হয়েছেন নগরপাল। একবারের জন্যেও ভেঙে পরেননি দুঁদে গোয়েন্দা রাজীব।

সারদা রোজভ্যালি তদন্তে পুলিশ ও সিবিআইয়ের মধ্যে অনেক দড়ি টানাটানির পর অবশেষে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সিবিআইয়ের মুখোমুখি হয়েছেন রাজীব কুমার৷ বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থার প্রতারণা মামলার তথ্য পেতে সিবিআই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে শিলংয়ের দফতরে৷ শনিবার কলকাতা পুলিশ কমিশনারকে দফায় দফায় প্রায় সাত ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে৷ সেখানে তাকে সিট নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন করা হয়েছে৷ সিবিআইয়ের সেই প্রশ্নমালা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন৷

সূত্রের খবর, বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থার প্রতারণা মামলার তথ্য পেতে কলকাতা পুলিশ কমিশনারকে একের পর এক প্রশ্ন করে সিবিআই আধিকারিকরা৷ সেই প্রশ্নগুলো ছিল বড় বড়৷ আর এই বড় প্রশ্ন নিয়েই নাকি আপত্তি করেন রাজীব কুমার৷ তিনি তদন্তকারী আধিকারীকদের কাছে আবেদন করেন, ছোট ছোট প্রশ্ন করার জন্য৷ এমনকি সিলেবাসের বাইরেও প্রশ্ন করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেছেন নগরপাল৷

সিবিআই তাকে চাপে ফেলতেই কী এই ধরনের প্রশ্ন করা হয়েছে? কিন্তু কলকাতা পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারও কম যাননি৷ তিনি সিবিআই আধিকারিকদের বুঝিয়ে দেন, তাদের এই ধরনের প্রশ্ন এবং সিলেবাস সম্পর্কে ওয়াকিবহাল নন৷

আরও পড়ুন- শিলংয়েই সারদার শেষের কবিতা লিখছে সিবিআই

সিবিআই সূত্রে খবর, পুলিশি তদন্ত ও জিজ্ঞাসাবাদ থেকে সিবিআইয়ের তদন্ত ও জিজ্ঞাসাবাদের ধরন আলাদা৷ রাজীব কুমারকে যে প্রশ্নগুলো করা হয়েছে৷ জিজ্ঞাসাবাদের ক্ষেত্রে সিবিআই এই ধরনেরই প্রশ্ন তৈরি করে থাকে৷ তবে তাতে কারও কিছুটা অসুবিধা হলে তখন তিনি কিছু সময়ের জন্য বিশ্রামে যেতে পারেন৷ বিশ্রাম শেষে ওই একই ধরনের প্রশ্ন করা হবে৷ প্রশ্নের ধরনের কোনও পরিবর্তন হবে না৷ প্রথম দিন রাজীব কুমারকে মূলত সিট নিয়েই প্রশ্ন করা হয়েছে৷

আজ ফের পুলিশ কমিশনারকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে সিবিআই৷ অপর সিবিআইয়ের শিলংয়ের ওই দফতরেই কুণাল ঘোষকেও চলছে জিজ্ঞাসাবাদ৷