মাথাভাঙা (কোচবিহার ): বাংলাদেশ সীমান্তের দিকে গোরু পাচারের সময় একটি পিক আপ ভ্যানের সন্দেহ গতিবিধি দেখে দাঁড় করায় পুলিশ। তল্লাশির সময় দেখা যায় বেআইনিভাবে গোরু নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ভ্যান থেকে দুজনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনা মাথাভাঙ্গার। ধৃতদের নাম রিয়াজদ্দিন ও নেস মহম্মদ।

পড়ুন আরও- উপনির্বাচনে ১৩টি আসনে ‘বিদ্রোহী’ বিধায়কদের নাম প্রকাশ করল বিজেপি

জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার মাথাভাঙ্গা শহরের লাগোয়া পঞ্চানন মোড়ে ভ্যানটি সীমান্তের শীতলকুচির দিকে যাওয়ার চেষ্টা করছিল। সন্দেহ হওয়ায় পুলিশ গাড়ি আটক করে তল্লাশি চালায়। দেখা যায় গাড়ির মধ্যে ধানের তুষের বস্তা দিয়ে ঢেকে রাখা আছে ১১টি গোরু। এরপর পুলিশ চালকের কাছে গোরু নিয়ে যাওয়ার চালান ও রসিদ দেখতে চায়। চালকের কাছে তেমন কিছু না মেলেনি। এরপরেই চালক ও খালাসিকে আটক করা হয়।

কোচবিহার জেলা পুলিশ জানিয়েছে, ধৃত দুজনের বাড়ি উত্তর দিনাজপুরের করণদিঘি-তে। তারা বাংলাদেশ সীমান্তের দিকে বেআইনিভাবে গোরু নিয়ে যাচ্ছিল। কোচবিহার সংলগ্ন বাংলাদেশের সীমান্ত দিয়ে গোরু পাচার নতুন কোনও ঘটনা নয়। তবে সম্প্রতি মালদহের দিক থেকে বাংলাদেশে গোরু পাচারকারীদের রুখতে পরপর অভিযান চলে।

পড়ুন আরও- আধার কার্ড নিয়ে বড় সুখবর দিল মোদী সরকার, খুশি সাধারণ মানুষ

শুধু গোরু নয়, ইয়াবা মাদক পাচার হয় পশ্চিমবঙ্গের সঙ্গে বাংলাদেশের সীমান্ত এলাকায়। সেটাও বড় চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সূত্রের খবর, বাংলাদেশ সরকার ইয়াবা মাদক কারবার রুখতে কড়া ভূমিকা নিয়েছে। তারপরেও বিভিন্ন রুট ধরে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলির সংলগ্ন সীমান্ত দিয়ে চলছে পাচার।