লন্ডন: বাচ্চারা অনেক কিছুই জানে না, একথা ঠিকই। ধীরে ধীরে সব দেখে শুনে তারপরই তাঁরা সব কিছু জানতে পারে। কিন্তু তাই বলে গোরু ডিম পাড়ে ! আজ্ঞে হ্যা, খাদ্যের উৎস সম্পর্কিত একটি সমীক্ষায় উঠে এসেছে এমনই একটি তথ্য। গোরুও নাকি ডিম পাড়ে !

সম্প্রতি খাদ্যের উৎস সম্পর্কে বাচ্চাদের জ্ঞান কেমন তা জানতে সমীক্ষার আয়োজন করেছিল একটি ডেয়ারি ফার্ম। আর সেখানে বাচ্চাদের উত্তর শুনে চোখ কপালে উঠতে বাধ্য। কেউ বলছে পনির গাছে ফলে তো আবার কেউ বলছে গোরু ডিম পাড়ে।

এ সমীক্ষা চালানো হয়েছিল ব্রিটেনে। সেখানকার ১০০০ জন ৮ থেকে ১০-এর বাচ্চাদের ওপর চালানো হয়েছিল সমীক্ষা। আর সেখন থেকেই মিলেছে অভিনব উত্তর। এর আগেও অবশ্য ব্রিটিশ নিউট্রিশন ফাউন্ডেশন নামক একটি সংস্থা ২৭ হাজার ৫০০ শিশুর মধ্যে একটি সমীক্ষা করেছিল। সেখানে প্রায় ৩০ শতাংশ বাচ্চা জানিয়েছিল পনির আসে গাছ থেকেই। তবে সব উত্তর যে বাচ্চারা ভুল দেয় তা কিন্তু নয়। দুধ কোথা থেকে পাওয়া যায়? এপ্রশ্নের উত্তরে গোরু বলতে ভোলেনি তাঁরা। কিন্তু একই সঙ্গে গোরু যে ডিম দেয় তাও বলেছে তাঁরা।

আরও পড়ুন – আকাশে হঠাৎ-ই ‘ড্রাগন মেঘ’, অবাক-আশঙ্কায় বাসিন্দারা

এমন বেহাল হাল কেন? ৮ থেকে ১০ বছর বয়স ছোট হলেও, গোরু ডিম দেয় কিনা, সে প্রশ্নের উত্তর তো জানা যেতেই পারে। সংস্থা জানাচ্ছে, অধিকাংশ বাচ্চা জানেই না, দই কীভাবে উত্পন্ন হয়! সংস্থার তরফে বলা হয়েছে, সব স্কুলেই বচ্চাদের নানান পুষ্টিকর খাবার খেতে বলা হয়, কিন্তু বাচ্চারা জানতে পারে না কোথা থেকে আসছে সেই খাবার। ফলে খাবারের উৎস সম্পর্কে তাঁদের জ্ঞান থেকে যায় সেই সীমিতই।