থানে: বিশ্বজুড়ে চলছে কালান্তক করোনার কালবেলা। দিন যতই যাচ্ছে ততই বাড়ছে উদ্বেগ। অব্যাহত মৃত্যু মিছিল। করোনার দাপট ক্রমশ বিধ্বংসী আকার নিচ্ছে ভারতেও।

এই অবস্থায় ভারতে করোনা সংক্রমণের শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র রাজ্য। আক্রান্ত ও মৃতের নিরিখে এখনও পর্যন্ত সারাদেশে মোট করোনা আক্রান্ত ২, ৩৬,৬৬০ জন। মৃতের সংখ্যা ছুঁয়েছে ৬,৬৪২।

দেশের এমন পরিস্থিতিতে করোনা রোগীদের চিকিৎসায় অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ রিমদেসিভির ব্যবহার করার কথা ভাবছে মহারাষ্ট্র প্রশাসন। এদিন মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ জানিয়েছেন, করোনা সংক্রামিত রোগীদের চিকিৎসায় এই রিমদেসিভির ওষুধ খুবই কার্যকর।

মহারাষ্ট্রে করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় প্রায় ১০,০০০ এই রিমদেসিভির ব্যবহার করা হয়েছে। এই ওষুধ প্রয়োগের পর সুস্থও হয়ে উঠেছেন অনেকেই।

তিনি আরও বলেন, “এই ওষুধটি রাজ্যের গরীব এবং করোনা আক্রান্ত অসহায় মানুষদের চিকিৎসায় ব্যবহারের জন্য আরও বেশী করে বাজারজাত করা হবে।”

শুধু তাই নয়, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ‘হু’ এর দাবি, বহুমূল্যবান এই ওষুধটি করোনা প্রতিরোধে বড়সড় ভূমিকা নিচ্ছে। ফলে যতদিন না পর‍্যন্ত করোনার কোনও প্রতিষেধক বের হচ্ছে, ততদিন পর‍্যন্ত এই ওষুধই ব্যবহারের পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

প্রসঙ্গত, করোনা সংক্রমণের শীর্ষে থাকা মহারাষ্ট্রে গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাড়িয়েছে,৮০,২২৯। মৃত ২,৮৪৯ জন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।